সিরাজগঞ্জে ইউপি আওয়ামী লীগের সম্মেলন স্থগিত

প্রকাশিত: মে ১৪, ২০২২; সময়: ১:৫১ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিরাজগঞ্জ : সিরাজগঞ্জের বেলকুচি রাজাপুর ইউপি আওয়ামী লীগের সম্মেলন স্থগিত। চলছে ভোটার তালিকার পরিবর্তন। আগামী ১৬ মে বেলকুচি উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন স্থগিত করেছে উপজালা আওয়ামী লীগ। দির্ঘ ১১ বছর পর রাজাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে ঘিরে ইউনিয়ন জুরে উৎসবের আমেজ থাকলেও স্থগিত ঘোষনার পর স্তব্ধ হয়ে গেছে ইউনিয়নের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা।

রাজাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ৯টি ওয়ার্ডের সভাপতি, সাধারন সম্পাদকের স্বাক্ষরিত এক লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয় যে, রাজাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোহাম্মদ আকন্দ ও সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম বদর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ কর্তৃক প্রদত্ত কমিটির তালিকা থেকে বেশ কিছু নেতার নাম পরিবর্তন করে তাদের নিজেদের কিছু লোককে তালিকায় অন্তুভুক্ত করে নতুন তালিকা উপজেলা কমিটির কাছে জমা দেয়। যা পুরোটাই আপত্তিকর। এই তালিকা সংশোধন না হলে তারা সম্মেলনে অংশ নেবেনা বলে উল্লেখ করেন।

বেলকুচি উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি বেগম আশানুর বিশ্বাস বলেন, যেহেতু রাজাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৯টি ওয়ার্ড কমিটির তালিকা নিয়ে অভিযোগ উঠেছে। সেহেতু আগামী ১৫ মে রাজাপুর সম্মেলন করা সম্ভব না। তাই ১৪ মে দৌলতপুর সম্মেলন শুরু হওয়ার পুর্বেই রাজাপুরের সম্মেলনের নতুন তারিখ ঘোষনা করা হবে। তার আগে উক্ত অভিযোগটি খতিয়ে দেখে তালিকা সংশোধন করা হবে।

বেলকুচি উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গাজী দেলখোস আলী প্রামানিক বলেন, আগামী ১৫ মে রাজাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও এই ইউনিয়নের ওয়ার্ড কমিটির তালিকা নিয়ে জটিলতা থাকায় নির্ধারিত সময়ে সম্মেলন করা সম্ভব হবেনা। তবে ১৪ মে শনিবার দৌলতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এই সম্মেলনে স্থানীয় এমপি, সাবেক মন্ত্রী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সকল নেতাকর্মী উপস্থিত থাকবে। সেখানে এই রাজাপুর ইউনিয়নের সমস্যা নিয়ে বসা হবে। যদি সেখানে সমস্যা সমাধান করা হয় তাহলে দ্রুত সম্মেলন করা হবে। তবে ১৫ মে সম্মেলন হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কম। যেহেতু ছোট অভিযোগ সেহেতু দ্রুত সমাধান হবে বলে মনে করছি।

রাজাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোহাম্মদ আকন্দ কথা বলতে রাজি না হলেও সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম বদর বলেন, রাজাপুর ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ড হতে যে তালিকা আমাদের কাছে প্রেরন করেছিলো আমরা তা যাচাই বাচাই করার সময় কয়েকটি ওয়ার্ড কমিটিতে কয়েকজন নতুন নেতার নাম তালিকায় যুক্ত করেছি। এটা তেমন কোন সমস্যা হবার কথা না। তার পরেও যেহেতু অভিযোগ দিয়েছে। উপজেলার নেতারা তা বিবেচনা করে ব্যবস্থা নেবে। তবে আমি চাই যেহেতু দির্ঘ ১১ বছর পর সম্মেলনে তারিখ নির্ধারন করা হয়েছে নেতারা যেন সেই তারিখেই সম্মেলন অনুষ্ঠিত করে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে