কালাইয়ে জেলা আওয়ামী লীগ নেতাকে বহিষ্কারের দাবি

প্রকাশিত: মে ১৩, ২০২২; সময়: ৯:২৬ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, জয়পুরহাট : জয়পুরহাট জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আক্কেলপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর জাতীয় সংসদের হুইপ, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির (চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত) সাংগঠনিক সম্পাদক ও জয়পুরহাট-২ (কালাই-ক্ষেতলাল-আক্কেলপুর) আসনের সংসদ সদস্য আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এবং কালাই উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম মাহফুজার রহমান মন্টু ফকিরকে নিয়ে অশোভন বক্তব্য দিয়েছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন দলের নেতা-কর্মীরা।

এমন অশোভন বক্তব্য দেওয়ায় তারা আ’লীগ নেতা গোলাম মাহফুজ চৌধুরীকে দল থেকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছেন। শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে জয়পুরহাটের কালাই উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠন এক জরুরি সভা  করেছে। এ সভায় গোলাম মাহফুজ চৌধুরীকে দল থেকে বহিষ্কারের দাবি জানানো হয়।

কালাই বাসস্ট্যান্ড এলাকায় উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে জায়গা সংকুলান হওয়ায় ওই সভা
উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন কালাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিনফুজুর রহমান মিলন।

সভায় বক্তব্য দেন কালাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ফজলুর রহমান, কালাই পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য রাবেয়া সুলতানা, কালাই পৌর আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন মোল্ল্যা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বাবু মুনিশ চৌধুরি, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রতœা রশিদ, আহম্মেদাবাদ ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আলী আকবর, জিন্দারপুর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম, বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকসহ আওয়ামী লীগের
সহযোগী অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

তবে জয়পুরহাট জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাহফুজ চৌধুরী বলেন, আমি
কারও বিরুদ্ধে অশোভন বক্তব্য দেইনি। যেসব কথা বলেছি তা একেবারেই সাংগঠনিক বক্তব্য।
সভায় বক্তারা বলেন, গত বুধবার দুপুরে জয়পুরহাট পৌর কমিউনিটি সেন্টারে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের
আয়োজন করেন জয়পুরহাট ১ আসনের সংসদ সদস্য সামছুল আলম দুদু। ওই অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামী
লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আক্কেলপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র গোলাম মাহফুজ চৌধুরী বক্তব্য দেন।

তিনি জয়পুরহাট ২ আসনের সংসদ সদস্য ও হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন সম্পর্কে আপত্তিকর
কথাবার্তা বলেছেন। এছাড়াও কালাই উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম মাহফুজার রহমান মন্টু
ফকিরকে নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় আপত্তিকর কথাবার্তা বলেছেন। এটি দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী। তারা জেলা
আওয়ামী লীগের কাছে গোলাম মাহফুজ চৌধুরীর বিরুদ্ধ সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানান।

গোলাম মাহফুজ চৌধুরী গত বুধবারের অনুষ্ঠানে হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপনের উদ্দেশে বলেছেন,
আপনার কী ছিল, আজকে কী হয়েছে। এক সময় আপনি আমাদের কাছে সিগারেট চেয়ে খেতেন। স্বপন
সাহেব, আপনাকে কেউ মাইক্রো ভাড়াও দিত না। আপনি সেই লোক এখন গাড়ির শেষ নেই। এলাকায় এখন
ফ্ল্যাগ লাগিয়ে আসেন। আল্লাহ আপনার ভাগ্যে দিয়েছেন। তাতে অসুবিধা নেই। মানুষের সঙ্গে ভালো
ব্যবহার করেন। আপনারা বুকে হাত দিয়ে বলতে পারবেন স্বপন সাহেবের সঙ্গে ভালোভাবে কথা বলতে পারেন ?
স্বপন সাহেব মানুষের সঙ্গে কুকুর-বিড়ালের মতো আচরণ করেন। শেখ হাসিনা জয়পুরহাটের খোঁজখবর
রাখেন। স্বপন সাহেব কী করেন, আমরা কী করি, তা সব খোঁজখবর রাখেন। এসব কথা তার বক্তব্যে দেওয়ার পরপরই তা যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

এবিষয়ে কালাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফজলুর রহমান বলেন, গোলাম মাহফুজ চৌধুরী
সংসদ সদস্য সামছুল আলমের আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এবং যেখানে সেখানে সাবেক কালাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যন মরহুম মাহফুজার রহমান মন্টু ফকিরকে
নিয়ে আপত্তিকর কথাবার্তা বলতে পারেন না। তাকে অবশ্যই জেলা আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কারের দাবি করছি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে