তারেক রহমানের সঙ্গে জঙ্গিবাদের সংযোগ

প্রকাশিত: এপ্রিল ২৬, ২০২২; সময়: ১২:৫৭ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : অর্থপাচার ও দুর্নীতি মামলাসহ বেশ কয়েকটি মামলায় দণ্ডিত পলাতক আসামি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে জঙ্গিবাদের সংযোগ থাকার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এরই মধ্যে ইন্টারপোল যুক্তরাজ্যের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে বিষয়টি জানিয়ে তাকে দ্রুত বাংলাদেশে পাঠানোর তোড়জোড় শুরু করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, তারেক রহমানের সঙ্গে বিভিন্ন জঙ্গি গোষ্ঠীর আলাপ হয়েছে, যার কলরেকর্ড ইন্টারপোলের হাতে এসেছে। এরই মধ্যে বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ইন্টারপোল একাধিকবার যোগাযোগ করেছে।

জানা গেছে, যেকোনো মূল্যে তারেক রহমানকে দেশে পাঠাতে ইন্টারপোল বাংলাদেশের সঙ্গে একমত হয়েছে। মূলত বিভিন্ন জঙ্গির সঙ্গে তারেক রহমানের আলাপচারিতার কল রেকর্ড পেয়েই ইন্টারপোল এমন সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে।

এদিকে, যুক্তরাজ্যের একটি সূত্র জানিয়েছে, তারেক রহমান তার বাংলাদেশি পাসপোর্ট নবায়ন না করায় যুক্তরাজ্য রাজনৈতিক আশ্রয় দিয়েছে। তবে দেশটি তাকে কোনো পাসপোর্ট দেয়নি। এর ফলে তারেক রহমানকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো সহজ হবে।

বিএনপির একটি সূত্র জানায়, অর্থপাচার মামলায় ২০১৬ সালের ২১ জুলাই তারেক রহমানকে সাত বছর কারাদণ্ড দেন আদালত। কিন্তু তারেক রহমান দেশে না থাকায় মামলায় তাকে পলাতক হিসেবে দেখানো হয়। রায়ের বিরুদ্ধে ৩০ দিনের মধ্যে আপিল করার বিধান থাকলেও তিনি তা করেননি। ফলে আপিলের সুযোগ তিনি হারিয়েছেন।

এছাড়া ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার পাশাপাশি তারেক রহমানও ১০ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন। তারেক রহমান দেশে না থাকায় দুই মামলাতেই তাকে পলাতক দেখানো হয়েছে।

ফলে দেশে ফিরলেই তার কারাবাস জীবন শুরু হবে। এর মধ্যে নতুন করে জঙ্গিদের সঙ্গে তারেক রহমানের সম্পৃক্ততা বিএনপির নেতাকর্মীদের ভাবিয়ে তুলেছে।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে জঙ্গিদের সম্পর্ক নতুন নয়। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা চালিয়ে হত্যা করতে চেয়েছিলেন তারেক।

তখন তিনি মুফতি হান্নানের মতো শীর্ষ সন্ত্রাসীর সহায়তা নেন। এখন তিনি অপকর্মের মাশুল গুনবেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে