সমাবেশের আগেই নিজেদের মধ্যে হাতাহাতি-মারামারিতে জড়াল ছাত্রদলে

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৫, ২০২১; সময়: ১১:২৯ am |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : যতই দিন গড়াচ্ছে, ততই যেন প্রকাশ্য হচ্ছে বিএনপির অন্তকোন্দল। বেরিয়ে আসছে একের পর এক থলের বিড়াল। গতকাল শনিবার রাজধানীতে তেমনি এক ঘটনা ঘটেছে।

বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে, সেদিন নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্ব ও গ্রুপিংয়ের জেরে সমাবেশ শুরুর আগেই হাতাহাতি-মারামারিতে লিপ্ত হন বিএনপির ছাত্রসংগঠন ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। এক পর্যায়ে তা ভয়ংকর রূপ ধারণ করে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশের আয়োজন করছিল ছাত্রদল।

শনিবার সকাল ১০টায় এ সমাবেশ শুরুর কথা থাকলেও দলীয় পূর্ব পরিকল্পনার অংশ হিসেবে সকাল ৮টা থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে নেতাকর্মীরা সমাবেশস্থলে উপস্থিত হতে থাকেন।

একপর্যায়ে সেখানে তারা নিজেদের মধ্যে প্রথমে বসা নিয়ে বাকবিতণ্ডা ও পরে হাতাহাতি-মারামারিতে লিপ্ত হন। এতে প্রেসক্লাব এলাকায় যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটে, সৃষ্টি হয় দীর্ঘ যানজটের।

মূলত সকাল ৯টার পর থেকেই প্রেসক্লাবের সামনে বিশৃঙ্খলা বাড়তে থাকে। ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা নিজেরাই নিজেদের মধ্যে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন।

ধীরে ধীরে এটি হাতাহাতি-মারামারিতে গিয়ে ঠেকে। একপর্যায়ে দলের শীর্ষ নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।বিশিষ্টজনদের ভাষ্য, এটাই বিএনপির প্রকৃত চিত্র।

দলের শীর্ষ নেতা থেকে শুরু করে তৃণমূলের নেতাদের মধ্যেও নেই কোনো ভাতৃত্ববোধ ও মতের মিল। পান থেকে চুন খসার মতো ঘটনাতেই তারা হাতাহাতির মতো জঘন্য কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েন। জামায়াত সংশ্লিষ্ট এ দলটির সহিংস কর্মকাণ্ডের অভ্যাসও বেশ পুরনো।

তারা আরো বলেন, বিজয়ের মাসে সহিংসতার পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নেমেছে বিএনপি। সেজন্য তারা খালেদার অসুস্থতাকে পুঁজি করে দেশব্যাপী বিশৃঙ্খলা তৈরির মাধ্যমে নিজেদের ফায়দা লোটার চেষ্টা করছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে