কুষ্টিয়ায় বিএনপির স্বতন্ত্র প্রার্থীকে সাবেক এমপি পুত্রের হুশিয়ারি

প্রকাশিত: নভেম্বর ২০, ২০২১; সময়: ৫:২০ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া : ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ঘিরে এবার কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর) আসনের সাবেক সাংসদ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি রেজাউল হক চৌধুর ছেলের বক্তব্য নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

দৌলতপুর উপজেলার রিফাইতপুর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী জামিরুল ইসলাম বাবুর পক্ষে নির্বাচনী সভায় বক্তব্য দিতে গিয়ে নানা বেফাঁস কথা বলেন। গত ১৬ নভেম্ভর রাতে রিফাইতপুর ইউনিয়নের বিনতিপাড়া গ্রামে তিনি জামিরুলের পক্ষে বক্তব্য রাখেন। এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

রেজাউল হক চৌধুরীর ছেলে ইমরান চৌধুরী কলিন্স বিএনপির নেতার ছেলে স্বতন্ত্র প্রার্থী মন্টি সরকারকে হুশিয়ার করে বলেন,‘ ভাই এখনো সময় আছে, আমরা কিন্তু এখনো আমাদের রুদ্ধরূপ শুরু করিনি ভাই। আপনি এখনো সময় আছে আপনার মান সম্মান নিয়ে ঘরে উঠুন। আমরা যদি রুদ্ধমুর্তি ধারণ করি, এটা হবে আপনার জন্যও খারাপ, আপনার দলের জন্যও খারাপ। আমরা আমাদের প্রার্থীকে বিজয়ী করার জন্য কত কিছু করতে পারি, সে হয়তো আপনার ধারণা নেই। নৌকা পেয়েছে আমাদের জামিরুল ইসলাম বাবু ভাই।

ইমরান চৌধুরী তার কয়েক মিনিটের বক্তব্যে আরো বলেন, জামিরুল ইসলাম বাবু টোকেন চৌধুরীর প্রার্থী, রেজাউল হক চৌধুরীর প্রার্থী, মাহবুবউল আলম হানিফ সাহেবের প্রার্থী। তাই তাকে বিজয়ী করার জন্য আমাদের যা যা করার দরকার তাই করবো।

রাতের এ সমাবেশে এলাকার বেশ কয়েক’শ মানুষ দাঁড়িয়ে ও বসে তার কথা শোনেন। এ সময় বক্তব্য শুনে অনেকে হাত তালি দেন।

ইমরান চৌধুরী বলেন,‘ বিএনপির প্রার্থীকে হুশিয়ার দিয়ে আরো বলেন, আপনি আমাদের শ্রদ্ধাভাজন ভাই, আমি আপনাকে অনুরোধ করবো লোকবল তুলে, নির্বাচনের টাকা জমা দিয়েছেন সুন্দর ভাবে মাইকিং করে অথবা সাংবাদিক সম্মেলন করে নির্বাচন বর্জন করুন। এতে আপনারও ভালো-আপনার দলের লোকেরও ভাল।’

যদি কখনো বিএনপি সরকার ক্ষমতায় আসে, আপনি আবার নির্বাচন করবেন। আমরা সেদিন আপনাকে কিছু বলতে যাব না, কিন্তু এখন আমার দল ক্ষমতায় আপনি কেন এখন নির্বাচন করে শুধু শুধু নিজের ভাই বোনকে বিপদে রাখবেন। আপনি যদি আপনার দলের লোককে ভালবেসে থাকেন, আপনি যদি আপনার গ্রামের লোককে ভালবেসে থাকেন, আপনি যদি আপনার দলীককে ভালবেসে থাকেন, তাহলে আপনি দলের প্রার্থী শ্রদ্ধাশীল হয়ে এই নির্বাচন বর্জন করে ঘরে ওঠে বসে থাকুন। তা-না হলে ভাই এই রক্তের খেলা কিন্তু বন্ধ হবে না। এই রক্তের দ্বায়ভার কিন্তু আপনাকে নিতে হবে। আগামী ২৮ তারিখে কিন্তু আপনি ভোট সেন্টারে যেতে পারবেন না, নিজের ভোটটাও দিতে পারবেন না। শুধু শুধু আপনি আপনার ক্ষতি করছেন।

দলের বিদ্রোহী প্রার্থী ও নেতাদের উদ্দেশ্য করে বলেন, যারা এখনো নৌকায় ওঠেন ও নৌকার মাঝি হননি তাদের সাথেও আমাদের কথা হয়েছে। তারা কথা দিয়েছে অল্প দিনের ভিতরেই তারা নৌকাতে উঠবে।

আমরা আশাবাদী শাহীন ভাই সেও আসবে, ইনশাআল্লাহ আমরা শাহিন ভাইকে নিয়ে সাথে নিয়েই আগামী দিনের প্রোগামটা এখানে করবো।’

এ সভায় নৌকার প্রার্থী জামিরুল ইসলাম বাবুসহ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মিরা উপস্থিত ছিলেন। মন্টি সরকারের বাবা রবিউল ইসলাম সরকার দৌলতপুর উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক। তার চাচা শহীদ সরকার মঙ্গল বর্তমান কমিটির সাধারন সম্পাদক।

এ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ, জাসদসর বিএনপির স্বতন্ত্র মিলিয়ে ৫জন চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। জামিরুল ইসলাম বাবু গতবারও দলীয় মনোনয়ন পান। তিনি রেজাউল হক চৌধুরীর অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নৌকার প্রার্থী জামিরুল ইসলাম বাবু বলেন,‘ কলিন্স ভাই এসছিলেন আমার সমাবেশে। তিনি বক্তব্য দিয়েছিলেন।’

আর বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে ইমরান চৌধুরী কলিন্স বলেন,‘ যা হওয়ার হয়েছে। ভাই বিষয়টি নিয়ে লেখা-লেখি না করায় ভালো। আমি প্রয়োজনে কথা বলবো।’

বিএনপির স্বতন্ত্র প্রার্থী মন্টি সরকার বলেন,‘ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও নৌকার প্রার্থী আমাকে মাঠে নামতে দিচ্ছে না। তারা হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। সাবেক এমপির ছেলে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা গুরুতর অপরাধের শামিল। তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে