নাটোরে স্বেচ্ছাসেবক লীগের জেলা কমিটি ঘোষণায় অনাস্থা

প্রকাশিত: জুলাই ২০, ২০২১; সময়: ৮:৫০ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোর : নাটোরে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের জেলা কমিটি ঘোষণায় মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। সোমবার স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতি নির্মল কুমার গুহ এবং সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু স্বাক্ষরিত ২৩ সদস্যের একটি কমিটি প্রেরণ করা হয়েছে। ওই কমিটির সভাপতি করা হয়েছে খন্দকার ইশতিয়াক আহমেদ ডলার ও সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে মোঃ শফিউল আযম স্বপনকে। তিন বছরের জন্য ঘোষিত এই কমিটিকে আগামী এক মাসের মধ্যে কমিটি পূর্ণাঙ্গ করে কেন্দ্রীয় দপ্তরে প্রেরণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে এই কমিটি ঘোষণার পর আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মালেক শেখসহ জেলা আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী অভিনন্দন জানিয়ে সামাজিক গণমাধ্যম ফেসবুক আইডিতে স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

অপরদিকে ঘোষিত এই কমিটিকে পকেট কমিটি এবং গঠনতন্ত্র ও আদর্শবিরোধী এবং অবৈধ বলে দাবি করেছে পৌর ও উপজেলা কমিটিসহ দলে স্থান না পাওয়ারা। ঘোষিত এই কমিটির প্রতি অনাস্থা জ্ঞাপন করে বাতিলের দাবি জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে নাটোর পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগ। এছাড়া এই ঘোষিত কমিটির প্রতি অনাস্থা জানিয়ে অনেকেই সংগঠন থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়ে ফেসবুকে স্টাটাস দিয়েছেন।

সোমবার সন্ধ্যায় শহরের বগুড়া বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগ কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে কমিটির সভাপতি মলয় কুমার রায় বলেন, সম্প্রতি জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ কমিটি বিলুপ্ত করে কেন্দ্রীয় কমিটি। কিন্তু নতুন করে কমিটি ঘোষণা হয়েছে রাতের আধারে হঠাৎ করে। সংগঠনের কোনো নেতাকর্মীদের অবহিত না করে রাতের আধারে স্থানীয় আওয়ামী লীগের কিছু স্বার্থন্বেষী মহল নিজেদের স্বার্থ হাসিল করতে কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে যোগসাজশে এ পকেট কমিটির অনুমোদন করিয়েছে। যা স্বেচ্ছাসেবক লীগের গঠনতন্ত্র ও আদর্শ বিরোধী। অযাচিত লোকজন দিয়ে গঠন করা কমিটির ফলে দলের সুনাম নষ্টের পাশাপাশি কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়বে। তাই, দ্রুত এই পকেট কমিটি বাতিল করে বর্তমানে নেতৃত্বদানকারীদের নিয়ে কাউন্সিলের মাধ্যমে বৈধ একটি কমিটি গঠনে করার আহ্বান জানান তারা।

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতারা অভিযোগ করেন ,নবগঠিত জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটিতে যাকে সভাপতি করা হয়েছে তিনি শহরের চিহিুত রাজাকার সোনামিয়ার সন্তান ইসতিয়াক আহম্মেদ ডলার। আমরা রাজাকারের বংশধরদের কোথাও দেখতে চাই না। সংগঠনের নেতা কর্মীদের প্রশ্ন -একজন রাজাকারের ছেলে কীভাবে নাটোর জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হয়? রাজাকার সোনা মিয়া নাটোরে অনেক মানুষকে হত্যা করেছে, লুটপাট করেছে। সেই কুলাঙ্গারের সন্তান কিভাবে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হয় ?

অপরদিকে নব ঘোষিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক শফিউল আযম স্বপনকে কোন দিন স্বেচ্ছাসেবক লীগের কোন কর্মসূচিতে দেখা যায়নি। যারা রাতদিন পরিশ্রম করে স্বেচ্ছাসেবক লীগকে জেলায় শক্তিশালী করেছে , যারা বিএনপি জামাতের নির্মম অত্যাচার সহ্যা করেছে, জেল খেটেছে। বছরের পর বছর দলের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে তাদের অবমূল্যয়ান করা হয়েছে। পদবঞ্চিত নেতাকর্মীদের দাবী অবিলম্বে দ্রুত এই কমিটি বাতিল করে কাউন্সিলের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠন করতে হবে। অন্যথায় কঠোর আন্দোলনের পাশাপাশি নবগঠিত কমিটিকে প্রতিহত করার ঘোষণা দেয়া হয় সংবাদ সম্মেলন থেকে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ সভাপতি মুরাদুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ স¤পাদক মেহেদী হাসান শুভ, সাংগঠনিক স¤পাদক জাঙ্গাঙ্গীর আলম বাবু, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সোহাগ হোসেন, আরিফ হোসেন আলী বাবা, মকবুল হোসেন প্রমুখ।

এদিকে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি ঘোষণায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন অধুনালুপ্ত জেলা কমিটির আহ্বায়ক অরিফুর রহমান ও যুগ্ম আহ্বায়ক আহমেদ সেলিম। তারা দুজনা কমিটি ঘোষণা করায় বিস্ময় প্রকাশ করেন।

আহমেদ সেলিম বলেন সংগঠনের কমিটি গঠন হবে দলীয় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী। সংগঠনের নেতা কর্মীদের নিয়ে সম্মেলনের মাধ্যমে প্রকাশ্যে কমিটি গঠন হবে এমন প্রত্যাশা ছিল সবার। সেই লক্ষ্য নিয়ে অনেকেই সংগঠনের জন্য শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন। কিন্ত করোনা মহামারির মধ্যে হঠাৎ করে কমিটি ঘোষণা করায় বিস্মিত হতে হয়। এই কমিটি বাতিল বা স্থগিত করে সংগঠনের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কমিটি করা হবে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের কাছে এমন প্রত্যাশা বা দাবি করছি।

  • 474
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে