দেশের প্রতিটি অর্জন আওয়ামী লীগের হাত ধরেই : কাদের

প্রকাশিত: জুলাই ৮, ২০২১; সময়: ২:৫৫ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আওয়ামী লীগ হঠাৎ গজিয়ে ওঠা কোনো ভুঁইফোড় রাজনৈতিক সংগঠন নয়, দেশের প্রতিটি অর্জন আওয়ামী লীগের হাত ধরেই হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) সরকারি বাসভবনে ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন তিনি।

‘আওয়ামী লীগ নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে’- বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, এটা বিএনপি নেতাদের এক ধরনের ভ্রান্তিবিলাস। এ ভাবনা দেশের ইতিহাসের সবচেয়ে ব্যর্থ বিরোধী দলের নেতাদের আত্মতুষ্টি লাভের সস্তা খোরাক মাত্র।

ওবায়দুল কাদের বলেন, এ দেশের মাটির অনেক গভীরে আওয়ামী লীগের শেকড়। শুধু ভৌগলিক স্বাধীনতাই নয়, অর্থনৈতিক মুক্তিও এসেছে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, মাটি ও মানুষের হৃদয়ের গভীরে আওয়ামী লীগের স্থান। আওয়ামী লীগকে নিয়ে অতীতে অনেক ষড়যন্ত্র হয়েছে, কিন্তু কোনো লাভ হয়নি। উল্টো এই রাজনৈতিক দলটি ফিনিক্স পাখির মতো জেগে উঠেছে। বাংলাদেশ রাষ্ট্রের অস্তিত্বের সঙ্গে আওয়ামী লীগের সম্পর্ক। এ সম্পর্ক চিরকালের। ইচ্ছা করলেই কেউ তা মুছে ফেলতে পারবে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগকে যারা নিশ্চিহ্ন করার ষড়যন্ত্র করেছিল, বরং তারাই নিশ্চিহ্ন হয়েছে। জনগণ তাদেরই ইতিহাসের কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে। আন্দোলন, সংগ্রাম, ত্যাগ আর মানুষের ভালোবাসায় আওয়ামী লীগ আজ মহীরুহে রূপান্তরিত একটি প্রতিষ্ঠান।

আওয়ামী লীগের এই শীর্ষ নেতা বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অদম্য গতিতে এগিয়ে যাওয়া আওয়ামী লীগকে যারা জনবিচ্ছিন্ন মনে করে, তারা নিজেরাই এখন জনবিচ্ছিন্ন ও জননিন্দিত। তাদের রাজনীতি আজ অস্তিত্ব সংকটে।

তিনি বলেন, করোনাকালে এখন রাজনীতি হচ্ছে অসহায়, খেটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়ানো। বিএনপি এ দুঃসময়েও মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদগার করে যাচ্ছে। বিএনপির রাজনীতি জনমানুষের জন্য নয়। তাদের রাজনীতিতে ত্যাগের কোনো মহিমা নেই। আছে শুধু ভোগের উগ্র বাসনা।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্য ওবায়দুল কাদের বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃতির জনক বিএনপি, আওয়ামী লীগ নয়। কারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ভূলুণ্ঠিত করতে চায়? কারা স্বাধীনতা বিরোধীদের গাড়িতে পতাকা তুলে দিয়েছিল? এখনও কারা স্বাধীনতা বিরোধীদের পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে যাচ্ছে তা দেশবাসী জানে। স্বাধীনতার ঘোষক আর ঘোষণার পাঠক এক নয়। এ সত্যটা বিএনপিকে অনুধাবন করতে হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে