রাজশাহীতে ঘুরে দাঁড়াতে চায় জাতীয় পার্টি

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০; সময়: ৪:২৪ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক : আসন্ন পৌরসভা ও ইউনিয়ন নির্বাচনে সারা দেশেই প্রার্থী দেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে জাতীয় সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি। যেসব পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদে যোগ্য দলীয় প্রার্থী পাওয়া যাবে তাদেরকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। এ দুই নির্বাচন ঘরে তৃণমূলকে সক্রিয় করতে মাঠে নামছেন নেতারা।

এর অংশ হিসেবে তারা আগামী বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুইদিনের সাংগঠনিক সফরে পঞ্চগড় যাচ্ছেন। উত্তরাঞ্চলের সফরে পার্টির অতিরিক্ত মহাসচিব (রংপুর বিভাগ) ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী নেতৃত্ব দেবেন।

অপরদিকে, জেলা কমিটির সভাপতি রয়েছেন সাবেক এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক আবুল হোসেন এবং সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন রেন্টু। প্রায় ছয় মাস আগে কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে। অনেকটায় নিষ্কৃয় জেলা কমিটি ফের সক্রিয় হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

জেলা সভাপতি অধ্যাপক আবুল হোসেন বলেন, গত মে মাসে তাদের কমিটির মেয়দ শেষ হয়েছে। তবে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আহবায়ক কমিটি না হওয়া পর্যন্ত এ কমিটি দায়িত্ব পালন করবে।

তিনি বলেন, করোনা কারণে তাদের রাজনৈতিক কর্মকান্ড বন্ধ ছিল। ইতোমধ্যেই তাদের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। উপজেলাগুলোতে সাংগঠনিক সফর করে আগামীতে স্থানীয় সরকার নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করা হয়েছে। জেলার ১৪টি পৌরসভায় এবার দলীয় প্রার্থী দেয়ার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

এদিকে, গত মার্চে রাজশাহী মহানগর জাতীয় পার্টির (জাপা) কার্যালয়ের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ বাধে। এক গ্রুপের দেওয়া তালা ভেঙে আরেক গ্রুপের কার্যালয় দখল-পাল্টা দখলের ঘটনা ঘটে। এ সময় কেন্দ্রীয় কমিটির প্রতি নানা অভিযোগ তুলে নগর জাপার প্রায় পাঁচ শতাধিক নেতা গণপদত্যাগ করেন। এরপর কেন্দ্র থেকে ৫১ সদস্যের একটি আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়। কমিটির আহবায়ক সাইফুল ইসলাম স্বপন এবং সদস্য সচিব ড. আবু ইউসুব সেলিম। এই কমিটি বর্তমানে কার্যক্রম চালাচ্ছে।

নগর কমিটির সদস্য সচিব ড. আবু ইউসুব সেলিম বলেন, নগরে জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক কর্মকান্ড অব্যাহত রয়েছে। করোনাকালিন স্বাস্থ্য বিধি মেনে সংগঠনের কর্মকান্ড চালানো হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, নগরীতে সাতটি থানা ও ৩০টি ওয়ার্ড ইউনিট রয়েছে। এসব ওয়ার্ড ইউনিট কমিটি গঠনের কার্যক্রম চলছে। শীঘ্রই সব ইউনিট কমিটি করার পর মহানগরের সম্মেলন করা হবে।

জানা গেছে, স্থানীয় সরকারের এ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি সাংগঠনিক সক্ষমতার পরিচয় দিতে চায়। এজন্য জনপ্রিয় দলীয় নেতাকর্মীদের মনোনয়ন দেয়া হবে। যেসব এলাকায় জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য রয়েছেন এবং সাংগঠনিক অবস্থাও শক্তিশালী সেসব স্থানের প্রার্থী জয়ী করতে বিশেষ উদ্যোগও নেবে দলটি।

নির্বাচন সামনে রেখে জাতীয় পার্টির একাধিক নেতা বলেন, পৌরসভার মেয়র ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হতে যাচ্ছে। দলীয় প্রতীকে একেবারেই তৃণমূল পর্যায়ে ভোট হওয়ায় এ নির্বাচনে দলের মাঠ পর্যায়ের জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের সুযোগ আসছে। ওই সুযোগ কাজে লাগাতে সব ধরনের কৌশল নিয়ে মাঠে নামবে নেতারা। দলীয় তৎপরতাও বাড়ানো হবে।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেন, পৌরসভা নির্বাচনে সারা দেশেই প্রার্থী দেয়ার চেষ্টা করব। সাংগঠনিকভাবে দক্ষ ও জনপ্রিয় এবং যাদের বিরুদ্ধে অনিয়ম-অপরাধের অভিযোগ নেই এমন প্রার্থীকে মনোনয়ন দেয়া হবে। স্থানীয় সরকার নির্বাচনে আমরা প্রমাণ করব, মাঠ পর্যায়ে জাতীয় পার্টির জনপ্রিয়তা আছে, সাংগঠনিক শক্তিও আছে।

  • 76
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও খবর

  • ১৩ ইউনিটের চেষ্টায় কল্যাণপুরে বস্তির আগুন নিয়ন্ত্রণে
  • রাজশাহী বিভাগে ডাকা অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট স্থগিত
  • ফের রেকর্ড সংক্রমণ দেখল বিশ্ব
  • রাজশাহীতে আনসার আল ইসলামের তিন সদস্য গ্রেপ্তার
  • আজ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)
  • নিজ বাড়ির পাশ থেকে মাটি খুঁড়ে বাবা-মা ও ছেলের লাশ উদ্ধার
  • দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলনের নেতৃত্বে ‘দুর্নীতিবাজরা’
  • গোদাগাড়ীতে ট্রাকের ধাক্কায় প্রাণ হারালো মা-ছেলে
  • দেশে ফের বাড়ছে করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্ত
  • রাজশাহীতে বেপরোয়া ছাত্রলীগ নেতা
  • শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার কথা ভাবছে সরকার
  • ট্রেন যাবে সোনামসজিদে
  • শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি আরও বাড়ল
  • ৯ ব্যক্তি ও এক প্রতিষ্ঠান পেল স্বাধীনতা পুরস্কার
  • গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে দ্বিধায় উপাচার্যরা
  • উপরে