‘জিয়া তো চুরি করেছে, তার বউও কম যায় না’

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১; সময়: ২:১৩ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : বিদেশে টাকা পাচার করে নিজেদের ভোগবিলাস করা খালেদা জিয়ার পরিবারের চরিত্র বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, ‘জিয়া তো চুরি করেছেই, তার বউও কম যায় না। সেটাও দেশের মানুষকে মনে করে দেওয়া উচিত।’

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় নিউইয়র্কে আওয়ামী লীগ আয়োজিত নাগরিক সভায় এ কথা বলেন তিনি। হোটেল লোটে নিউইয়র্ক প্যালেসের ভার্চুয়াল সভাকক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী যুক্ত হন।

নিউইয়র্ক সফরের পঞ্চম দিনে প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া এই নাগরিক সংবর্ধনা সভায় অন্যপ্রান্তে হোটেল ম্যারিয়টে থেকে যুক্ত হন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতারা। মিশিগান, টেক্সাস, ক্যালিফোর্নিয়া, সানফ্রান্সিসকো, ওয়াশিংটন ডিসি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ছাড়াও বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য থেকেও অনলাইন সংযুক্ত ছিলেন প্রবাসী আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজকে ফেরারি আসামি হয়ে বিদেশে তারা যেভাবে বসবাস করছে, এত আয়েশি জীবন কীভাবে কাটায়। তাদের এই বিলাসী জীবনের অর্থের জোগানদাতা কারা সেটাই প্রশ্ন। তাদের কর্মফলে তারা আজ সাজাপ্রাপ্ত। কিন্তু তাদের চক্রান্ত থামেনি।

তিনি বলেন, বিএনপি জামায়াতের অর্থে এসব সমালোচনাকারীরা অপপ্রচার চালাচ্ছে। তাদের অর্থ আসে কোথায় থেকে? তাদের অর্থে বলিয়ান হয়ে যারা এই ধরনের কথা বলে, বিএনপির চোরা টাকার ভাগ খেয়ে আওয়ামী লীগের বদনাম করে কোনো লাভ হবে না।

শেখ হাসিনা বলেন, কেউ কেউ বলেছেন, আমি নাকি বিমানে করে টাকা নিয়ে ট্রাঙ্কে-বস্তায় বৈদেশিক মুদ্রা এনেছি। যারা এগুলো বলল, তারা যেহেতু সবই জানে, তাহলে সেই ট্রাঙ্কগুলো গেল কোথায়? সেই খোঁজটাও তারা দিক।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া ক্ষমতায় থাকতে সৌদি আরব গিয়েছিল ১৫০ শুটকেস নিয়ে। সেখানে লকার ভাড়া করে করে অনেক জিনিস নাকি রেখে এসেছিল বলে শোনা যায়। খালেদার মন্ত্রী বাবর কয়েক লাখ ডলার নিয়ে ধরা পড়েছিল। তারা নিজেদের মতো সবাইকেই চোর মনে করে।

তিনি বলেন, এসব ছড়িয়ে তারা ভাবে খুব প্রচার পাবে এসব। কিন্তু তারা ভুলে যায়, আমি শেখ মুজিবের মেয়ে। আমাদের ক্ষমতা মানে মানুষের সেবা করা। আমরা অর্থসম্পদে লালায়িত না।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা হাভাতে ঘর থেকে আসি নাই যে কিছু একটা দেখলেই লাফ দিয়ে পড়ব। যেটা খালেদা জিয়ার পরিবারের ক্ষেত্রে ঘটেছে। তারা ক্ষমতাকে নিজেদের ভাগ্য গড়ার ক্ষেত্রে ব্যবহার করেছে, আর আমরা মানুষের ভাগ্য গড়ছি।

তিনি বলেন, পরিবারে শিখেছি, সিম্পল লিভিং হাই থিংকিং। যাদের চুরি করার অভ্যেস, তারা সবাইকে চোর ভাববে। এটা নিয়ে উত্তেজিত বা চিন্তা করার কিছু নেই।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে