বহু বছরের সমস্যা ঝুলন্ত তার, মিলছে না সমাধান

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৭, ২০২১; সময়: ১০:৫৫ am |
খবর > জাতীয়

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : রাজধানীর বহু বছরের পুরোনো সমস্যা ঝুলন্ত তার। নগরীর মূল সড়কের অনেক স্থানেই ঝুলতে ঝুলতে কোথাও মাটি স্পর্শ করেছে বিভিন্ন সেবা সংস্থার তার। বেশ কিছুদিন আগে ঘটা করে কেবলটিভি, ইন্টারনেট ও টেলিফোনের তার কাটা শুরু হলেও তা এখন আড়ালে চলে গেছে।

তারের জঞ্জালের ফাঁক গলেই জীবন চলে পুরান ঢাকায়। প্রায় সব বাসার কোল ঘেঁষেই গেছে এঁকেবেঁকে তার বিদ্যুতের খুঁটিতে হাইভোল্টেজের তার। কী নেই! ইন্টারনেট, কেবল টিভি, টেলিফোনসহ নানা ধরনের বৈধ-অবৈধ সংযোগ। বাড়ির বারান্দা বা জানালা খুললেই একহাত দূরেই মৃত্যুঝুঁকি। এভাবেই যুগের পর যুগ বসবাস লাখো বাসিন্দার। নগর পরিকল্পনাবিদরা বলছেন, দুই সিটি করপোরেশনের সমন্বিত উদ্যোগ ছাড়া এ সমস্যার সমাধান সম্ভব নয়।

এক নারী জানান, কয়েকদিন আগে তাতীবাঁজারে এক নারী কাপড় শুকাতে দেওয়ার সময় বিদ্যুতের তারে বিদ্যুতায়িত হয়ে মারা যান। সম্প্রতি কাপড় শুকোতে গিয়ে বারান্দার পাশের তারে বিদ্যুতায়িত হয়ে মারা যান এক অন্তঃসত্ত্বা নারী। তাকে বাঁচাতে গিয়ে স্বামীও প্রাণ হারান।

শুধু পুরান ঢাকা নয়, রাজধানীর প্রায় সব সড়কের পাশেই বিদ্যুতের খুঁটিতে ঝুলতে থাকা তার নেমে গেছে ফুটপাতের উপর। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন মাটির নিচ দিয়ে লাইন টানার পরিকল্পনা নিলেও সেটা বাস্তবে রূপ নেয়নি। উত্তর সিটির বেশ ক’টি এলাকায় মাটির নিচ দিয়ে লাইন টানা হলেও কবে কাজ শেষ হবে সেটা জানা নেই।

ডিএনসিসর মেয়র আতিকুল ইসলাম বলছেন, টেকসই সমাধান পেতে সময় লাগবে। তিনি বলেন, ঝুলন্ত তার ছিল অনেক। আমরা অনেক নামিয়ে ফেলা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে একটা মাস্টারপ্ল্যান করা হবে। আশা করি, মাস ছয়েকের মধ্যে সমস্ত তার নামিয়ে ফেলা সম্ভব হবে।

নগর স্থপতি ইকবাল হাবিব বলেন, উন্নয়নের জন্য সেবা বেড়েছে। সেই সঙ্গে তারের জঞ্জালে ঝুঁকিপূর্ণ হয়েছে জীবনও। অবহেলিত অবস্থায় যে মৃত্যুগুলো হয়েছে; সেগুলোর দায়দার নেওয়া না হলে এগুলো বন্ধ হবে না। তার মতে, সিটি করপোরেশনের উদ্যোগেই সেবা সংস্থাগুলোকে সমন্বিতভাবেই এর সমাধান করতে হবে।

 

  • 12
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে