ক্ষুধা আর লকডাউন একসাথে চলে না: জিএম কাদের

প্রকাশিত: জুন ২৬, ২০২১; সময়: ২:৩০ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকানোর লকডাউন জারির আগে দেশের হতদরিদ্র মানুষদের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের। শনিবার এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, “হতদরিদ্র আর খেটে খাওয়া মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত না করে কখনোই লকডাউন সফল হবে না। কখনোই ক্ষুধার্ত মানুষকে ঘরে আটকে রাখা যায় না। ক্ষুধা আর লকডাউন এক সাথে চলে না।”

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতি উদ্বেগজনক পর্যায়ে পৌঁছে যাওয়ায় বিশেষজ্ঞদের সুপারিশে সোমবার থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সারাদেশে ‘কঠোর লকডাউন’ জারির ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এই সময়ে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাড়ির বাইরে বের হতে পারবেন না। জরুরি পরিষেবা ছাড়া সব সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ থাকবে। জরুরি পণ্যবাহী পরিবহন ছাড়া সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে।

সংসদে বিরোধীদলীয় উপনেতা কাদের বলেন, “এটা মানতেই হবে, করোনাভাইরাস মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়লে লকডাউনের বিকল্প নেই। “কিন্তু, দেশে কয়েক কোটি খেটে খাওয়া মানুষ, যাদের ঘরে খাবার মজুদ থাকে না। প্রতিদিন আয় করেই, প্রতিদিনের খাবার জোগার করতে হয় তাদের। এমন প্রায় প্রতিটি পরিবারে খাবারের সাথে ঔষধ ও কোনো কোনো ক্ষেত্রে শিশু খাদ্য কিনতে হয়। দিতে হয় বাসা ভাড়াও।”

তিনি বলেন, “লকডাউনের কারণে কয়েক কোটি মানুষ প্রতিদিন কাজে যেতে না পারলে হাহাকার উঠবে এ সকল পরিবারে। মানবিক বিপর্যয় সৃষ্টি হতে পারে দেশজুড়ে। এছাড়া আইন শৃংখলা পরিস্থিতি ভেঙে পড়তে পারে অভাবের কারণে।” হতদরিদ্র মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতের পাশাপাশি তাদের বরাদ্দ যেন চুরি না হয়, তা সেজন্যও কঠোর প্রস্তুতি রাখতে সরকারকে আহ্বান জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে