যা হয়েছিল সেই দিন পরীমণির সঙ্গে

প্রকাশিত: জুন ১৪, ২০২১; সময়: ৯:০৯ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : মামলার তথ্য অনুযায়ী ঘটনার আগে পরীমণির সঙ্গে কোনও পরিচয়ই ছিল না নাসিরের। মামলার আরেক আসামি অমির কথামতো গাড়ি থামানো হয় বোট ক্লাবে। পরীমণির অভিযোগ, ধর্ষণ চেষ্টার আগে নাসির জোর করে তাকে মদ খাওয়ানোর চেষ্টা করেন। কুঞ্জ ডেভেলপারস নামে আবাসন ব্যবসার পাশাপাশি তিনি বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে ঠিকাদারি করেন।

রবিবার সন্ধ্যায় হঠাৎ করেই ভাইরাল হয়ে যায় চিত্রনায়িকা পরীমণির ফেইসবুক স্ট্যাটাস। যেখানে তিনি দাবি করেন, ঢাকা বোট ক্লাবে একজন শিল্পপতি তাকে ধর্ষণ, শারিরীক নির্যাতন ও হত্যাচেষ্টা করেছেন। ৪ দিন ধরে থানা পুলিশ, বা নিজ অঙ্গণের কারও কাছে কোনও সহযোগিতা পাননি তিনি।

অভিযোগ করেন ব্যবসায়ী নাসির ইউ মাহমুদের বিরুদ্ধে। এর পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয় নাসিরের ছবি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নাসিরের মূল ব্যবসা আবাসন। উত্তরা ক্লাবে পরপর দুই মেয়াদে ছিলেন সভাপতি। পড়াশোনা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সয়েল, ওয়াটার অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট বিভাগে। বিশ্ববিদ্যালয়ের এস এম হলের নির্বাচিত জিএসও ছিলেন নাসির। ছাত্র অবস্থায় জাতীয় পার্টির ছাত্র সংগঠন জাতীয় ছাত্র সমাজের সমন্বয়কারির দায়িত্বও পালন করেন তিনি।

জাতীয় পার্টির সবশেষ কাউন্সিলে তাকে প্রেসিডিয়াম সদস্য করা হয়। কুঞ্জ ডেভেলপারস নামে আবাসন ব্যবসার পাশাপাশি তিনি বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে ঠিকাদারিও করেন। যে স্থানে ঘটনাটি ঘটেছে সেই ঢাকা বোট ক্লাবের বিনোদন ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক তিনি।

সোমবার সকালে সাভার থানায় নাসিরসহ ৬ জনকে আসামি করে মামলা করেন পরীমণি।

মামলায় তিনি বলেন, ৮ জুন রাত সাড়ে এগারোটায় পারিবারিক বন্ধু অমিসহ তিনজনকে সঙ্গে নিয়ে উত্তরার উদ্দেশ্য রওনা দেন। পথে ঢাকা বোট ক্লাবে অমির কথামত গাড়ি থামানো হয়। বোট ক্লাব বন্ধ হয়ে গেলেও কৌশলে পরীমণিসহ সবাইকে ভেতরে নিয়ে যায় অমি। সেখানে নাসির পরিমনিকে জোরকরে মদ খাওয়ানো এবং ধর্ষণের চেষ্টা করেন। পরীমণির সঙ্গে থাকা জিমিকেও পিটিয়ে আহত করেন নাসির ও সঙ্গে থাকা লোকজন।

সোমবার নাসির ইউ মাহমুদকে গ্রেপ্তারের সময় তার সঙ্গে থাকা আরও তিন নারীকেও আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। পুলিশ বলছে নারীদের নানানভাবে নাজেহাল করার আরো অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে