রাজশাহীসহ সীমান্তের জেলায় করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়ছে

প্রকাশিত: জুন ৮, ২০২১; সময়: ৬:৫০ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : দেশের সীমান্ত জেলাগুলোয় করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়ছেই। হাসপাতালগুলোতে বাড়ছে রোগীর চাপ। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী, নওগাঁ, খুলনা, যশোরে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। সংক্রমণ ঠেকাতে সীমান্তের বিভিন্ন এলাকায় চলছে লকডাউন ও কঠোর বিধিনিষেধ। তবে স্থানীয়দের মধ্যে এখনও স্বাস্থ্যবিধি মানার প্রবণতা কম।

করোনা সংক্রমণ বাড়ছে রাজশাহীতে। দুটি পিসিআর ল্যাবে ৩শ ৮৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১শ ৭৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। একদিনের ব্যবধানে করোনা শনাক্তের হার বেড়ে ৪৬ দশমিক চার নয় শতাংশ হয়েছে। করোনা রোগীর চাপ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

নাটোরেও বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। একদিনে সংক্রমণ কিছুটা কমলেও শনাক্তের হার ৬২ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত হয়েছে ৪২ জন। সংক্রমণ কমাতে বুধবার থেকে ১৫ই জুন পর্যন্ত নাটোর ও সিংড়া পৌরসভায় লকডাউন দিয়েছে প্রশাসন।

খুলনায় নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার বেড়ে ৩১ শতাংশ হয়েছে। যা একদিন আগেও ছিলো ২৩ দশমিক দুই এক শতাংশ। নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১শ ৫১ জন। পঞ্চম দিনের মত সদর, সোনাডাঙ্গা ও খালিশপুর থানা ও রূপসা উপজেলায় চলছে কঠোর বিধিনিষেধ। ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও সড়কে মানুষের সঙ্গে বেড়েছে যানবাহন। যশোরে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত ১২৫ জন। একদিনের ব্যবধানে শনাক্তের হার ২৯ শতাংশ থেকে বেড়ে হয়েছে ৪২ শতাংশ।

চুয়াডাঙ্গায় আরও ২৮ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের ১৮ জনই সীমান্তবর্তী দামুড়হুদা উপজেলার বাসিন্দা। সংক্রমণ এড়াতে দামুড়হুদার ১৭ গ্রামে লকডাউন চললেও স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না অনেক বাসিন্দা। চাঁপাইনবাবগঞ্জে লকডাউন শিথিল করে মঙ্গলবার থেকে চলছে সাতদিন কঠোর বিধিনিষেধ। একদিনের ব্যবধানে করোনা শনাক্ত ১০ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ২৯ দশমিক দুই এক শতাংশ।

চতুর্থদিনের মতো লকডাউন চললেও সাতক্ষীরায় বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছে ১শ ৩ জন। ২৪ ঘণ্টায় জেলায় সর্বোচ্চ ৫৫ দশমিক শূন্য আট শতাংশ করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এদিকে, নওগাঁয় ৩৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। সদর পৌরসভা ও নিয়ামতপুরে চলছে ঢিলেঢালা লকডাউন।

  • 313
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে