দ্বিতীয় স্ত্রীকে বেশি গুরুত্ব দেয়ায় স্বামীকে ৬ টুকরো করে হত্যা

প্রকাশিত: জুন ১, ২০২১; সময়: ৭:১৩ pm |
খবর > জাতীয়

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : দ্বিতীয় স্ত্রীকে গুরুত্ব দেয়ায় স্বামীকে হত্যার পর দেহ ৬ টুকরো করে বিভিন্ন এলাকায় ফেলে রাখেন প্রথম স্ত্রী।

দ্বিতীয় স্ত্রীকে বেশি গুরুত্ব দেয়া, পারিবারিকভাবে অবহেলা এবং প্রতিনিয়ত শারীরিক নির্যাতনের কারণে স্বামী ময়না মিয়াকে হত্যা করেছেন প্রথম স্ত্রী শিল্পী। হত্যার পর ময়না মিয়ার দেহ ছয় টুকরো করে মহাখালীর বিভিন্ন এলাকায় ফেলে রাখা হয়। পরে, নিহতের দ্বিতীয় স্ত্রী বাদী হয়ে মামলা করেন বনানী থানায়। মঙ্গলবার দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে নৃশংস এ হত্যাকাণ্ডের বর্ণনা দিয়েছে পুলিশ।

এ ঘটনায় সিএনজি চালক স্বামী ময়না মিয়ার প্রথম স্ত্রী শিল্পীকে ৫ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

সিএনজি চালক ময়না মিয়ার সঙ্গে কড়াইল বস্তিতে থাকতেন প্রথম স্ত্রী শিল্পী। তাদের দুই সন্তান। কিন্তু, ময়না মিয়ার দ্বিতীয় বিয়ের পর ঝগড়া-কলহ লেগেই থাকতো। শিল্পীর উপর চালানো হতো নির্যাতন সঙ্গে অবহেলাও। এরই পরিণতিতে শুক্রবার শিল্পী ময়নাকে দুই পাতা ঘুমের বড়ি খাইয়ে গলা কেটে হত্যা করে। পরে শিল্পী একাই স্বামীর মৃত দেহ ছয় টুকরা করে মহাখালীর এবং বনানীর বিভিন্ন স্থানে ফেলে রাখে।

গত রবিবার থেকে পুলিশের অভিযানে একের পর এক উদ্ধার হয় হাত, পা, মাথাসহ ময়না মিয়ার মরদেহের ছয়টি অংশ। সোমবার, রাজধানীর কড়াইল বস্তিতে অভিযান চালিয়ে এ ঘটনায় শিল্পীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ঘটনাটির সাথে জড়িত আরো যারা জড়িত আছেন তাদের সকলেকেই আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে