ঘরে বসেই বৈশাখের আনন্দ উপভোগ করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত: এপ্রিল ১৩, ২০২১; সময়: ১১:০৬ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : বিশেষজ্ঞের পরামর্শে করোনা থেকে মানুষের জীবন বাঁচাতেই ‘কঠোর ব্যবস্থা’ নেয়ার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সরকার সব সময় জনগণের পাশেই রয়েছে। মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) সন্ধ্যায় বাংলা নববর্ষ-১৪২৮ উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে ভাষণে এ কথা বলেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জীবন-জীবিকায় কিছুটা অসুবিধা হলেও মহামারি থেকে রক্ষা পেতে বিধিনিষেধ মেনে চলতে হবে। অর্থনীতি যাতে ভেঙে না পড়ে, সেদিকে খেয়াল রেখেই কাজ চলছে জানিয়ে সরকার প্রধান বলেন, দেশের প্রতিটি নাগরিককেই টিকা দেয়া হবে।

বাঙালির সার্বজনীন এক উৎসব পহেলা বৈশাখ। বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষঙ্গে বর্ষবরণের অনুষ্ঠানে বর্ণিল লোকাচারে মানুষ আবাহন করে নতুন বছরকে। স্বজাত্যবোধ ও বাঙালিয়ানা জানান দেয়ার এই উৎসব এবারও অতিমারির কালো ছায়ায় ধূসর। নতুন উদ্যোমে ঘুরে দাঁড়ানোর অনুপ্রেরণা জাগানিয়া ছায়ানট, চারুকলা ঠিক নিস্তব্ধ না হলেও বিধিনিষেধের বেড়াজালে সীমিত সবকিছু।

মহামারির এই দুঃসহ সময়ে বর্ষবরণের আগের সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ নিয়ে এলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৈরী এই পরিস্থিতিতে সাবধানতা মেনে ঘরে বসেই সবাইকে উৎসব করার আহ্বান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দ্বিতীয় ধাপের করোনা ভাইরাসের আরও মরণঘাতি হয়ে আবিভূত হয়েছে। তাই পহেলা বৈশাখের আনন্দ গত বছরের মতো এবারও ঘরে বসেই উপভোগ করবো আমরা। অতীতের সব জঞ্জাল গ্লানি ধুয়ে মুছে আমরা নিজেদের পরিশুদ্ধ করবো।

ভাষণে উঠে আসে করোনার ভয়াবহতা নিয়ন্ত্রণে সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সর্বোচ্চ সতর্কবস্থা নেয়ার প্রয়োজনীয়তা। শেখ হাসিনা বলেন, কোনোভাবেই সংক্রমণ ঠেকানো যাচ্ছে না। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী আমাদের আরও কঠোর ব্যবস্থা নিতে হচ্ছে। আমি জানি এর ফলে অনেকেরই জীবন জীবিকার অসুবিধা হবে।

কিন্তু আমাদের সকলকেই মনে রাখতে হবে মানুষের জীবন সর্বাগ্রে, বেঁচে থাকলে আবারও সব কিছু গুছিয়ে নিতে পারবো। সরকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিম্নবিত্তের জন্য সহায়তার কার্যক্রম নেবে বলেও জানান সরকার প্রধান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মানুষের জীবন জীবিকা যাতে ভেঙে না পড়ে, সেদিকে আমরা কঠোর দৃষ্টি রাখছি। আপনারদের সঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। সরকার সব সময় আপনাদের পাশে রয়েছে। দ্বিতীয় ঢেউয়ের আঘাত হানার পর দরিদ্র মানুষের জন্য সাহায্যের নির্দেশ দিয়েছি। দেশের প্রতিটি নাগরিককে টিকার আওতায় নিয়ে আসার প্রস্তুতি সরকারের রয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রতিকূলতা জয় করেই বাঁচতে হবে।

  • 13
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে