করোনায় সুস্থ ৯ কোটি ৬৯ লাখ

প্রকাশিত: মার্চ ১৫, ২০২১; সময়: ১১:০১ am |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : মহামারি করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিশ্বব্যাপী জোরকদমে চলছে টিকাদান কার্যক্রম। তবুও এর প্রকোপ এখনো থামছে না। বিভিন্ন জনপদে নতুন রূপে হানা দিচ্ছে ভাইরাসটি। ফলে বেড়েই চলছে মৃত্যু এবং সংক্রমিতদের সংখ্যা। অবশ্য সুস্থতার সংখ্যাও বাড়ছে উল্লেখযোগ্যহারে।

মহামারি করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিশ্বব্যাপী জোরকদমে চলছে টিকাদান কার্যক্রম। তবুও এর প্রকোপ এখনো থামছে না। বিভিন্ন জনপদে নতুন রূপে হানা দিচ্ছে ভাইরাসটি। ফলে বেড়েই চলছে মৃত্যু এবং সংক্রমিতদের সংখ্যা। অবশ্য সুস্থতার সংখ্যাও বাড়ছে উল্লেখযোগ্যহারে।

গত একদিনে বিশ্বে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৭৬৯ জনের এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৬৩ হাজার ৯৬৫ জন।

আন্তর্জাতিক সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, আজ সোমবার এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী করোনায় সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা ১২ কোটি ৪ লাখ ১৭ হাজার ২৯ জন। মারা গেছেন ২৬ লাখ ৬৫ হাজার ২৪৬ জন। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৯ কোটি ৬৯ লাখ ৬৫ হাজার ৫৪ জন।

এ মহামারিতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় সংক্রমিতের সংখ্যা ৩ কোটি ৮১ হাজার ৬৫৭ জন। মারা গেছেন ৫ লাখ ৪৭ হাজার ২৩৪ জন।

ভারতকে ছাড়িয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে আসা ব্রাজিলে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ১৪ লাখ ৮৩ হাজার ৩৭০ জন। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ২ লাখ ৭৮ হাজার ৩২৭ জন।

তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ১৩ লাখ ৮৫ হাজার ১৫৮ জন। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ১ লাখ ৫৮ হাজার ৭৬২ জন।

তালিকায় রাশিয়ার অবস্থান চতুর্থ। পঞ্চম স্থানে ব্রিটেন। বাংলাদেশের অবস্থান ৩৩।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীন থেকে উৎপত্তি হওয়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২২১টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। পরে ১১ মার্চ, ২০২০ সালে করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

  • 13
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে