শীতের পিঠা তৈরি করুন

প্রকাশিত: নভেম্বর ১২, ২০২১; সময়: ৮:০৫ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : আসছে শীত! আর শীত আসলেই আবহমান বাঙলার মানুষ পিঠা উৎসবে মেতে উঠে। তৈরি করা হয় বাহারি রকমের পিঠা। বিশেষ করে শীত ঋতুতে নানা রকম পিঠার কদর বেশি বাড়ে। কিন্তু যান্ত্রিকতার এই শহরে সেসবের দেখা পাওয়া মুশকিল।

রাজধানী ঢাকায় ফুটপাথে, গলির মোড়ে মোড়ে শহরবাসীদের শীতের পিঠা খেতে দেখা যায়। এখানে পাওয়া যায় চিতই, ভাপা, মালপোয়া, পাটিসাপটা রসের পিঠা প্রভৃতি। এর মধ্যে জনপ্রিয়তার শীর্ষে আছে ভাপা ও চিতই পিঠা। আর চিতই পিঠা খাওয়ার জন্য রয়েছে বিভিন্ন ধরনের ভর্তা।

যেমন- সরষে ভর্তা, ধনেপাতা ভর্তা, শুঁটকি ভর্তা, মরিচ ভর্তা প্রভৃতি। কিন্তু বাহিরের পিঠার স্বাদ আর ঘরে নিজে তৈরি করে পিঠা খাওয়ার স্বাদে রয়েছে অনেক পার্থক্য। এবং বাহিরের পিঠা তেমন স্বাস্থ্যসম্মত নয়। তাই নিজেই যদি পরিবারের জন্য বা প্রিয় মানুষটির জন্য মজার সব পিঠা তৈরি করে চমকে দেয়া যায়, তাহলে কেমন হয়!

রেসিপি জানা নেই? তবে আজ আপনাদের জন্য থাকছে শীতের ৪ মজার পিঠা তৈরির রেসিপি:

পুলি পিঠা উপকরণ: পুরের জন্য: নারকেল কুড়ানো – ২ কাপ, খেজুরের গুড় – ১ কাপ, চালের গুড়া – ২ টেবিল চামচ (হালকা টেলে নেয়া), এলাচি গুড়া – ১/২ চা চামচ।

ডো এর জন্য: চালের গুঁড়া (আতপ চাল) -৩ কাপ, ময়দা – ১ কাপ, পানি – ৩ কাপ, সয়াবিন তেল – ১ টেবিল চামচ, লবণ – পরিমানমতো।

প্রণালি: নারকেল কোড়ানো, খেজুরের গুঁড়, টেলে নেয়া চালের গুঁড়া, এলাচি গুড়া এই সব উপকরণগুলো একসাথে জ্বাল দিতে হবে। আঠালো হয়ে এলে নামিয়ে ফেলতে হবে। একটি হাড়িতে পানি নিয়ে তাতে অল্প লবণ ও তেল দিয়ে ফোটাতে হবে। ফুটে উঠলে চালের গুঁড়া ও আধা কাপ ময়দা দিয়ে নাড়তে হবে। ভালো ভাবে নেড়ে মিশে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে একটু ঠাণ্ডা করে, ডো বানাতে হবে।

যদি কিছুটা নরম থাকে ময়দা মিশিয়ে ঠিক করতে হবে। অনেকক্ষণ মথে একটা মসৃণ ডো বানাতে হবে। এবার ছোট ছোট গোল চ্যাপ্টা রুটির মত করে মাঝে নারকেলের তৈরি করা মিশ্রণ কিছুটা দিয়ে দুই মাথা বন্ধ করে দিতে হবে। হাতে বানাতে না পারলে পিঠার ছাঁচেও বানাতে পারেন। এবার স্টিমারে ৩০ মিনিট বা পিঠা না হওয়া পর্যন্ত স্টিম করতে হবে। স্টিমার না থাকলে হাঁড়িতে পানি দিয়ে তার উপর ছিদ্র করা পাতিল রেখে পিঠা সেদ্ধ করতে দিন। সেদ্ধ হয়ে গেলে একটি চালুনিতে রেখে বাতাসে ছড়িয়ে দিন।

ভাপা পিঠা: শীতকাল মানেই শহর জুড়ে ভাপা পিঠার আয়োজন। তবে অনেকেই বাইরের খাবার খেতে চান না। শীতের পিঠায় ভাপা পিঠা খেতে চাইলে জেনে নিন সহজ রেসিপি-

উপকরণ: ২ কাপ চালের গুঁড়া, ১ কাপ খেজুর গুঁড়া, ১ কাপ নারিকেল গুড়া, স্বাদ মতো লবণ, পিঠা বানানোর বাটি, একটি পাতিল, একটি ছিদ্রযুক্ত ঢাকনি।

প্রণালি: প্রথমে চালের গুরা চালুনিতে করে চেলে নিতে হবে। এরপর চালের গুঁড়ার সাথে পানি ছিটিয়ে, লবণ দিয়ে হালকা ভাবে মেখে নিন। খেয়াল রাখবেন যেন দলা না বাঁধে।

এখন হাঁড়িতে পানি দিন, হাঁড়ি উপর ছিদ্রযুক্ত ঢাকনাটি রেখে চুলায় বসিয়ে দিন, চুলাটি খুব অল্প আচে রাখুন, ঢাকনির পাশে ছিদ্র থাকলে তা আটা বা মাটি দিয়ে বন্ধ করে দিন। ছোট বাটিতে মাখানো চালের গুঁড়া নিয়ে তার মাঝখানে পরিমাণমতো গুড় দিন।

এরপর ওপরে অল্প চালের গুঁড়া দিয়ে পাতলা কাপড়ে দিয়ে বাটির মুখ ঢেকে ছিদ্রযুক্ত ঢাকনির ওপর বাটি উল্টে তা সরিয়ে নিন। ২ থেকে ৩ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর পিঠাটিতে নারিকেলের গুঁড়া ছড়িয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

দুধ চিতই পিঠা: ভিন্ন ভিন্ন ঋতুতে ভিন্ন ভিন্ন পিঠার সম্ভার। এই শীতের সকালে দুধ চিতই বানিয়ে পরিবারের সবাইকে নিয়ে উপভোগ করার আনন্দই অন্যরকম। তাহলে চলনু জেনে নেয়া যাক, কিভাবে তৈরি করবেন দুধ চিতই পিঠা।

উপকরণ: চালের গুঁড়া ২ কাপ, পানি ও লবণ পরিমাণ মতো, ১ লিটার দুধ, গুড় ২ কাপ।

প্রণালি: চালের গুঁড়ায় পানি মিশিয়ে তরল মিশ্রণ তৈরি করুন। খেয়াল রাখবেন বেশি পাতলা বা বেশি ঘন যেন না হয়। তবে পাতলা গোলা করলে পিঠা সুন্দর নরম হয়। যে পাত্রে পিঠা ভাজবেন সেটাতে সামান্য তেল মাখুন। এখন পাত্রটি হালকা গরম করে ২ টেবিল চামচ চাল গোলা দিয়ে ঢেকে দিন। ২-৩ মিনিট পর পিঠা তুলে ফেলুন। ১ লিটার দুধ জ্বাল দিয়ে সামান্য ঘন করুন।

আলাদা করে দেড়-কাপ পানিতে ২ কাপ গুড় জ্বাল দিয়ে গুড়ের সিরা তৈরি করুন। সিরায় পিঠা ছেড়ে চুলায় দিয়ে কিছুক্ষণ জ্বাল দিন। ঠাণ্ডা হলে দুধ দিয়ে কিছু সময় ভিজিয়ে রাখুন। সকালে এই পিঠা খেতে মজা।

পাটিসাপটা পিঠা: শীতকাল মানেই মজার মজার সব পিঠার স্বাদ। গুঁড়া দুধের ক্ষীরসায় তৈরি নরম পাটিসাপটা পিঠা বানিয়ে ফেলতে পারেন খুব কম সময়ে। জেনে নিন কীভাবে বানাবেন।

উপকরণ: চালের গুঁড়া- ১ কাপ,ময়দা- আধা কাপ,গুঁড়া দুধ- ১/৩ কাপ,লবণ- আধা চা চামচ,খেজুরের গুড় (তরল)- আধা কাপ,ক্ষীরসা তৈরির উপকরণ,পানি- ১ কাপ,গুঁড়া দুধ- ১ কাপ,সুজি- ১/৪ কাপ,ঘি- ২ টেবিল চামচ, গুড়- ১/৩ কাপ

প্রস্তুত প্রণালি: চালের গুঁড়া, ময়দা, গুঁড়া দুধ ও লবণ একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। খেজুরের গুড় দিয়ে মিশিয়ে নিন। পানি দিন প্রয়োজন মতো। মসৃণ ও পাতলা ব্যাটার তৈরি করে কিছুক্ষণ ঢেকে রাখুন। ক্ষীরসা তৈরির জন্য চুলায় প্যান চাপিয়ে পানি ও গুঁড়া দুধ মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি গরম হয়ে গেলে সুজি ও ঘি দিয়ে অনবরত নাড়ুন। ঘন হয়ে গেলে চুলা বন্ধ করে গুড় মিশিয়ে নিন।

ননস্টিক ফ্রাইপ্যানে ঘি ব্রাশ করে চুলায় দিয়ে দিন। গর্তযুক্ত চামচের সাহায্যে পিঠার ব্যাটার দিয়ে দিন প্যানে। প্যানের হাতল ধরে ঘুরিয়ে চারদিকে ছড়িয়ে দিন। চুলার জ্বাল একদম কম রাখবেন। এক কোনায় লম্বা করে ক্ষীরসা দিয়ে ভাঁজ করে নিন পিঠা। আরও কয়েক মিনিট উল্টেপাল্টে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে