বাড়িতে করোনা বয়ে আনছে জুতা

প্রকাশিত: জুন ২৭, ২০২০; সময়: ১২:২৯ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : চারদিকে করোনার ভয়ঙ্কর রূপ। এর মধ্যেও আমাদের বের হতে হচ্ছে। অফিস, বাজারঘাট থেকে শুরু করে নিত্যপ্রয়োজনে যেতে হচ্ছে বিভিন্ন জায়গায়। কিন্তু এসব পথঘাটে কোথায় কী রয়েছে তা জানা সম্ভব নয়। আক্রান্তদের কফ-থুথু কিংবা ব্যবহৃত মাস্ক পড়ে থাকে এসব পথঘাটে। যার উপর দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। তাই নিয়মিত হাত ধোয়া, মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব মানা সত্ত্বেও ব্যবহৃত জুতার মাধ্যমে বাড়িতে ঢুকে যেতে পারে করোনাভাইরাস!

অস্ট্রেলিয়া গবেষকরা জানিয়েছেন, জুতার তলায় সবচেয়ে বেশি জীবাণু লাগে। ব্যাকটেরিয়া, ছত্রাক থেকে শুরু করে ভাইরাসও বাদ যায় না। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির ড্রপলেট কিংবা হাঁচি-কাশির মাধ্যমে বের হওয়া থুতু রাস্তায় পড়ে থাকলে জুতার মাধ্যমে করোনাভাইরাস আপনার ঘরে হাজির হতে পারে।

জুতা তো পরতেই হবে। কিন্তু বাড়িতে যাতে জুতার মাধ্যমে করোনা প্রবেশ করতে না পারে সেদিকেও কড়া নজর রাখতে হবে। এই সমস্যায় কি করা যায়, সে সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক…

১. প্রথমেই আপনার বাড়িতে পরার জুতা ও বাইরে থেকে পরে আসা জুতাকে আলাদা রাখুন। বাইরে থেকে পরে আসা জুতা একেবারেই বাড়ির মধ্যে ঢোকাবেন না। এর দরুন আপনার বাড়ি করোনা থেকে দূরে থাকবে।

২. জুতা খালি হাত দিয়ে খুলবেন না। গ্লাভস পরে তারপর আপনার জুতার ফিতে বা জুতা স্পর্শ করুন। তারপর ভালো করে হাত ধুয়ে নিন অথবা জীবাণুনাশকের ব্যবহার করুন।

৩. জুতার তলার দিকে বাড়তি নজর দিন। জুতার তলার দিকই বেশি সংস্পর্শে আসে। তাই ভালো করে জুতোর তলার দিক পরিষ্কার করুন। বাড়িতে ঢুকেই আগে জীবাণুনাশক দিয়ে জুতা পরিষ্কার করুন। কিংবা আরও ভালোভাবে জীবাণুনাশক ওয়াইপ ব্যবহার করুন। জুতা পরিষ্কারের সময় অবশ্যই গ্লাভস ব্যবহার করুন। পরিষ্কার করা হয়ে গেলে আগে ভালোভাবে হাত-পা ধুয়ে নেবেন।

৪. জীবাণুনাশক স্প্রে ব্যবহার করতে চাইলে জুতাকে ভালোভাবে শুকোতে দিন। ভেজা অবস্থায় জীবাণুনাশক স্প্রে দেবেন না।

উপরোক্ত ছোট্ট কয়েকটি পদ্ধতি মেনে চললেই জুতার করোনা সমস্যা থেকে আপনি রেহাই পাবেন। সূত্র: জি নিউজ

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে