সারা দেশে নিরাপত্তা জোরদার

প্রকাশিত: মে ১৪, ২০১৯; সময়: ১২:২২ অপরাহ্ণ |
Share This

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান শুভ বুদ্ধপূর্ণিমা (১৮ মে) উদযাপনকে ঘিরে নাশকতামূলক সুনির্দিষ্ট হামলার কোনো শঙ্কা নেই। তারপর বাড়তি সতর্কতা হিসেবে সারা দেশে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

বাড়ানো হয়েছে গোয়েন্দা তৎপরতা। ধর্মীয় উপাসনালয়গুলোতে নিñিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশের সব ইউনিটকে নির্দেশনা দিয়েছে পুলিশ সদর দফতর। পুলিশের সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

পুলিশ সদর দফতরের এআইজি মিডিয়া সোহেল রানা বলেন, বৌদ্ধ মন্দিরসহ সব ধর্মীয় উপাসনালয়গুলোর নিñিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করা ছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি চালানো হবে। সোমবার দুপুরে ডিএমপি সদর দফতরে এ উপলক্ষে এক সমন্বয় সভা হয়েছে। ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়ার সভাপতিত্বে সভায় বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে শোভাযাত্রা ও অনুষ্ঠানস্থল ঘিরে ডিএমপির সুদৃঢ়, সমন্বিত ও নিñিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বৌদ্ধ মন্দির ও তার আশপাশ এলাকা সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা ছাড়াও মন্দির ও আশপাশ এলাকায় পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা করা হবে। সব ধরনের মাদকদ্রব্য, আঁতশবাজি ও পটকা ব্যবহারের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা থাকবে। নিরাপত্তার স্বার্থে ফানুস উড়ানো থেকে বিরত থাকা এবং নামাজের সময় সব ধরনের বাদ্যযন্ত্র বাজানো বন্ধ রাখতে হবে।

ডিএমপি বলেছে, অনুষ্ঠানস্থল বোম্ব ও ডগ স্কোয়াড দিয়ে সুইপিং করা ছাড়াও পর্যাপ্ত ফায়ার টেন্ডার ও দ্রুত চিকিৎসার জন্য অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা রাখা হবে। মন্দিরের নিরাপত্তার স্বার্থে পুলিশের সঙ্গে সমন্বয় করে স্থানীয় সব শ্রেণী পেশার প্রতিনিধি নিয়ে বুদ্ধ পূর্ণিমা উদযাপন কমিটি গঠন করা হবে।

শোভাযাত্রা কেন্দ্রিক নিরাপত্তা: আগামী শুক্রবার সকাল ৯টায় বাংলাদেশ বৌদ্ধ সাংস্কৃতিক পরিষদ আয়োজিত শান্তি শোভাযাত্রা জাতীয় জাদুঘর, শাহবাগ থেকে শুরু হয়ে প্রেস ক্লাবে শেষ হবে। শনিবার সকাল সাড়ে ৭টায় ধমরাজিক বৌদ্ধ মহাবিহার আয়োজিত শান্তি শোভাযাত্রা ধমরাজিক বৌদ্ধ মহাবিহার হতে শুরু হয়ে বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়াম, কমলাপুর হয়ে পুনরায় ধর্মরাজিক বৌদ্ধ মহাবিহারে গিয়ে শেষ হবে।

উপরে