ওমিক্রন নিয়ে স্বস্তির খবর

প্রকাশিত: নভেম্বর ৩০, ২০২১; সময়: ১০:১৭ am |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : করোনার নতুন ধরন ওমিক্রনের প্রথম শনাক্তকারী খোদ দক্ষিণ আফ্রিকার চিকিৎসক অ্যাঞ্জেলিক কোয়েৎজি। তার দাবি, এর উপসর্গ খুবই হালকা এবং এটা ভারতীয় ধরন ডেল্টার চেয়ে ভয়ংকর নয়। করোনার নতুন ধরন ‘ওমিক্রনে’ থমকে গেছে পুরো বিশ্ব। ধরনটি প্রতিদিনই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে শনাক্ত হচ্ছে। এতে বাড়ছে উদ্বেগ, বাড়ছে আতঙ্ক।

নতুন ধরনটি নিয়ে বিশ্বব্যাপী এই উদ্বেগের মধ্যেই আশার বাণী শোনালেন দক্ষিণ আফ্রিকার চিকিৎসক অ্যাঞ্জেলিক কোয়েৎজি। তিনি বলেন, তার কাছে চিকিৎসা নেয়া কয়েকজন ওমিক্রন রোগীর শরীরে শুধু মৃদু উপসর্গ দেখা গেছে। এমনকি তারা হাসপাতালে ভর্তি না হয়েই সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার চিকিৎসক অ্যাঞ্জেলিক কোয়েৎজি বলেন, এটা নিয়ে আতঙ্কের কিছু নেই। গণমাধ্যম ও কিছু মানুষ এটা নিয়ে মানুষের মধ্যে উদ্বেগ তৈরি করছে। ওমিক্রনের উপসর্গ বলতে হালকা জ্বর ও ঠান্ডা। আর সবচেয়ে বড় উপসর্গ হচ্ছে ক্লান্তি।

তবে এর আগে, দক্ষিণ আফ্রিকায় পাওয়া করোনার নতুন এই ধরনকে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের চেয়েও ভয়ঙ্কর বলে দাবি করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। কিন্তু প্রথম এই ধরনটি শনাক্ত করা এই চিকিৎসকের পাল্টা দাবি, ওমিক্রনের ক্ষমতা ডেল্টার চেয়ে কম। ধরনটি নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে নেয়া আন্তর্জাতিক বিধিনিষেধেরও সমালোচনা করেন তিনি।

গত ১৮ নভেম্বর দক্ষিণ আফ্রিকার কর্মকর্তাদের ওমিক্রন নিয়ে সতর্ক করেন অ্যাঞ্জেলিক। ওই সময় তিনি ৩০ জন করোনা রোগীর মধ্যে সাতজনের শরীরে অন্যরকম উপসর্গ দেখতে পান, যা করোনার অন্যান্য ধরনের উপসর্গের চেয়ে ভিন্ন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে