আফগান সংকটের মাঝেই রাশিয়ার সামরিক মহড়া

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১০, ২০২১; সময়: ১২:৩৮ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : নয়া আফগানিস্তান নিয়ে নিরাপত্তা শঙ্কা ও উদ্বেগের মধ্যেই প্রতিবেশী দেশগুলোকে নিয়ে সামরিক মহড়া চালাল রাশিয়া। সম্ভাব্য যে কোনো সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ঠেকাতেই এই মহড়া বলে জানিয়েছে অনুশীলনে অংশ নেওয়া দেশগুলো। এদিকে বাল্কটিক অঞ্চলেও বেলারুশকে নিয়ে তিন মাসব্যাপী সামরিক মহড়া শুরু করেছে মস্কো, যা নিয়ে ঘুম হারাম ন্যাটোভুক্ত দেশগুলোর।

একের পর এক রকেট উৎক্ষেপণের দৃশ্য কিরগিস্তানে। তালেবান নেতৃত্বাধীন নয়া ইসলামিক আমিরাত অব আফগানিস্তান নিয়ে উদ্বেগ যখন বাড়ছে ঠিক তখন প্রতিবেশী দেশগুলোকে নিয়ে সামরিক মহড়া চালাল রাশিয়া। আফগানিস্তান থেকে মার্কিন ও ন্যাটো সেনা চলে যাওয়ার পর দেশটি নিয়ে বাড়তি আগ্রহ দেখা যাচ্ছে পাকিস্তান, চীন, রাশিয়া ও ইরানের মতো দেশগুলোর।

বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) কিরগিস্তানের ইসিককুল অঞ্চলে রকেট লাঞ্চারের পাশাপাশি অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান সাঁজোয়া যান ও বিভিন্ন রণসরঞ্জাম নিয়ে সামরিক অনুশীলন করেন রাশিয়া নেতৃত্বাধীন আফগানিস্তানের প্রতিবেশী দেশগুলো।

আফগান সীমান্তে নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগের মধ্যেই রুশ সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে সামরিক এই মহড়ায় অংশ নেন কাজাখস্তান, কিরগিস্তান ও তাজিকিস্তানের সেনারাও। রাশিয়ার অত্যাধুনিক আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এস থ্রি হান্ড্রেড সামরিক অনুশীলনে অংশ নেয় বলে জানায় রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

সামরিক মহড়ায় অংশ নেয়া দেশগুলোর দাবি, আফগানিস্তানের পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে সীমান্তে যে কোনো ধরনের সন্ত্রাসী কার্যক্রম প্রতিরোধেই এই মহড়ার আয়োজন করা হয়েছে। এ নিয়ে চলতি মাসে আফগান সীমান্তে তিনবারের মতো সামরিক মহড়া চালাল পুতিন সরকার। শিগগিরই কিরগিস্তানে আরও একটি বড়সর সামরিক মহড়া করার কথা জানিয়েছে মস্কো।

শুধু আফগানিস্তান নয় ফ্রান্স জার্মানিসহ পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটোর সদস্য দেশগুলোরও ঘুম হারাম করতে চাইছে রাশিয়া। বেলারুশকে নিয়ে বাল্কটিক সাগরে ওয়ার গেমস শিরোনামে সামরিক মহড়া শুরু করেছে রাশিয়া। তিন মাস ধরে চলবে এই মহড়া। আর্মেনিয়া, ভারত, কিগিরস্তান, মঙ্গোলিয়ার সেনারাও এতে অংশ নেবে বলে জানিয়েছে রুশ প্রতিরক্ষা দপ্তর।

  • 18
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে