দিল্লির ২ কোটি মানুষের জীবন বাঁচাতে চেয়েছি, এটাই আমার অপরাধ: কেজরিওয়াল

প্রকাশিত: জুন ২৬, ২০২১; সময়: ১০:৩৩ am |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল শুক্রবার একটি বিতর্কিত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছেন বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি। প্রতিবেদনটিতে দাবি করা হয়েছে, করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ চলাকালীন সময়ে তার সরকার রাজ্যে অক্সিজেনের চাহিদার পরিমাণকে অতিরঞ্জিত করেছিল। কেজরিওয়াল হিন্দি ভাষায় লিখিত একটি টুইটে বলেছেন, ‘আমার অপরাধ হচ্ছে, আমি দিল্লির দুই কোটি মানুষের জীবন বাঁচানোর জন্য লড়াই করেছিলাম।’

বিজেপি সংশ্লিষ্ট কিছু সূত্র থেকে পাওয়া একটি প্রতিবেদন গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে, যেখানে দাবি করা হয়েছে, দিল্লি সরকার করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময় রাজধানীতে অক্সিজেনের চাহিদার ব্যাপারটিকে ‘অতিরঞ্জিত’ করে প্রয়োজনের তুলনায় চার গুণ বেশি হিসেবে দেখিয়েছিল। ফলশ্রুতিতে দিল্লিতে অতিরিক্ত অক্সিজেন সরবরাহ করা হয় এবং বাকি রাজ্যগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

কেন্দ্রীয় সরকারের সূত্রগুলো জানায়, এটি সুপ্রিম কোর্টের অডিট দলের একটি অন্তর্বর্তী প্রতিবেদন। তবে, কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টি (এএপি) জোর দিয়ে বলেছে, এ ধরনের কোনো প্রতিবেদনের অস্তিত্ব নেই এবং এটি একটি মিথ্যা অপপ্রচারের অংশ। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনী প্রচারণার প্রতি কটাক্ষ করে কেজরিওয়াল বলেন, ‘আপনি যখন নির্বাচনী সমাবেশে বক্তৃতা দিচ্ছিলেন, আমি তখন সারারাত জেগে অক্সিজেনের ব্যবস্থাপনা করছিলাম। আমি জনমানুষের জন্য কাজ করেছি এবং তাদের জন্য অক্সিজেনের সরবরাহ নিশ্চিত করতে বিভিন্ন মহলের কাছে মিনতি করেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘মানুষ অক্সিজেনের অভাবে তাদের আপনজনদের হারিয়েছে। দয়া করে তাদেরকে মিথ্যাবাদি বলবেন না। তারা খুব কষ্টে আছেন।’ ইতোমধ্যে দিল্লির উপ-মুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়া ‘সুপ্রিম কোর্টের গঠন করা অক্সিজেন অডিট কমিটি এ ধরনের কোনো প্রতিবেদন তৈরি করেনি’ বলে দাবি করেছেন। একটি অনলাইন গণমাধ্যম ব্রিফিংয়ে তিনি বিজেপির বিরুদ্ধে এই প্রতিবেদনটি নিয়ে মিথ্যাচার করার অভিযোগ তোলেন।

‘এ ধরনের কোনো প্রতিবেদনের অস্তিত্ব নেই। আমরা সুপ্রিম কোর্টের গঠন করা অক্সিজেন অডিট কমিটির সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা জানান, এ ধরনের কোনো প্রতিবেদনে তারা স্বাক্ষর করেননি এবং এর অনুমোদনও দেননি। বিজেপি একটি ভুয়া প্রতিবেদনের কথা বলছে যেটি তাদের পার্টি সদর দপ্তরে বানানো হয়েছে। আমি তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করছি, এমন একটি প্রতিবেদন জমা দিতে, যেখানে অডিট কমিটির সব সদস্যের স্বাক্ষর আছে’, বলেন সিসোদিয়া।

তিনি আরও বলেন, ‘এটি শুধু মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ নয় বরং অক্সিজেন স্বল্পতার কারণে যারা তাদের পরিবারের সদস্যদের হারিয়েছেন, তাদেরকেও বিব্রত করা হচ্ছে।’ সিসোদিয়া অক্সিজেন সরবরাহ সংক্রান্ত অব্যবস্থাপনার জন্য কেন্দ্র সরকারকে দায়ী করেন। এপ্রিল ও মে মাসে কোভিড-১৯ মহামারির ভয়াবহ দ্বিতীয় ঢেউয়ের আঘাতে দিল্লিতে করুণ অবস্থার সৃষ্টি হয় এবং প্রতিদিন শত শত মানুষ প্রাণ হারান। বিভিন্ন হাসপাতালে প্রয়োজনের তুলনায় অক্সিজেনের সরবরাহ অনেক কম থাকায় সংকটটি আরও ঘনীভূত হয়েছিল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে