এবার মুখে শ্বাস দিয়ে মাকে বাঁচানোর চেষ্টা দুই বোনের

প্রকাশিত: মে ৩, ২০২১; সময়: ১:৩৫ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : কয়েকদিন আগে ভারতের আগ্রায় করোনা আক্রান্ত রবি সিঙ্ঘল নামের এক ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছিলেন তার স্ত্রী রেণু। কিন্তু পথে অটোতেই রবির শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। আর তাকে বাঁচাতে মরিয়া রেণু নিজের আক্রান্ত হওয়ার ভয় উপেক্ষা করে স্বামীর মুখে মুখ দিয়ে কৃত্রিম উপায়ে শ্বাস দিয়ে তাকে বাঁচিয়ে তুলতে চেষ্টা চালিয়েছিলেন। কিন্তু রেণুর সেই প্রচেষ্টা সফল হয়নি। হাসপাতালের বাইরেই রেণুর কোলেই তার স্বামী মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়েন। মুখে মুখ দিয়ে একজন স্ত্রীর স্বামীকে বাঁচানোর সেই চেষ্টা সেই সময় সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে উঠেছিল। সেই সঙ্গে ভারতের করোনা রোগীদের চিকিৎসার করুণ চিত্রও ফুটে উঠেছে সেই দৃশ্যের মধ্য দিয়ে। এবার আবার এরকমই এক ঘটনা ঘটল দেশটির উত্তরপ্রদেশের বহরাচ জেলার একটি সরকারি হাসপাতালে।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদন অনুযায়ী, একটি স্ট্রেচারে করে দুই বোন করোনা আক্রান্ত মাকে মুমূর্ষ অবস্থায় নিয়ে এসেছিলেন হাসপাতালটিতে। মাকে নিস্তেজ হতে দেখে তার দুই মেয়ে মুখে মুখ দিয়ে মাকে শ্বাস দেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তারা মাকে বাঁচাতে পারেননি।

শনিবার ভিডিওটি সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশিত হওয়োর পর পরই ভাইরাল হয়ে উঠেছে। ভিডিওতে অনেককে অক্সিজেনের ঘাটতি ও হাসপাতালের কর্মীদের তৎপরতা নিয়ে অভিযোগ করতে শোনা গেছে।

তবে হাসপাতালটির জরুরি বিভাগের মেডিকেল অফিসার আহতিসাম আলী জানান, ওই নারীকে শেষ অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছিল। চিকিৎসক তাকে দেখতে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তিনি মারা যান।

ওই মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ এ কে সাহনী জানান, চিকিৎসা শুরুর আগেই ওই নারী মারা যান। মারা যাওয়া ওই নারীর দুই মেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে মায়ের মুখে মুখ দিয়ে শ্বাস দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। ওই হাসপাতালে অক্সিজেনের সংকট নেই বলেও তিনি দাবি করেন।

উল্লেখ্য, ভারতে করোনা পরিস্থিতি মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। প্রতিদিনই বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। আইসিইউ তো দূরের কথা, হাসপাতালের সাধারণ বেডেই রোগীদের সিট মিলছে না। করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসায় অক্সিজেনের হাহাকার শুরু হয়েছে হাসপাতালগুলোতে। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ৯৯ লাখ ২৫ হাজার ৫১৭ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ২ লাখ ১৮ হাজার ৯৫৯ জন।

  • 89
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে