মিয়ানমারে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে একদিনেই ৯০ জনের বেশি বিক্ষোভকারী নিহত

প্রকাশিত: মার্চ ২৭, ২০২১; সময়: ৬:৫৩ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : মিয়ানমারে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে শনিবার অন্তত ৯০ জন আন্দোলনকারী মারা গেছেন। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম ও প্রতক্ষ্যদর্শীদের সূত্রে জানা গেছে, দেশটির সামরিক জান্তা প্রধান মিন অং হ্লাইং দেশের মানুষকে ও গণতন্ত্র রক্ষায় লড়ে যাওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পরই দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে এত প্রাণহানি ঘটে।

গত ১ ফেব্রুয়ারি সামরিক জান্তা ক্ষমতা দখলের পর থেকেই দেশটির অসংখ্য মানুষ বিক্ষোভ করছেন। এদিকে আজ দেশটিতে ‘সশস্ত্র বাহিনী দিবস’ দিবস উদযাপন করেছে সামরিক বাহিনী। বহিষ্কৃত নীতিনির্ধারকদের নিয়ে গঠিত সিআরপিএইচের মুখপাত্র ড. সাশা বলেন, “আজ সশস্ত্র বাহিনীর জন্য লজ্জার দিন,”

“সামরিক বাহিনী ৩০০ জনেরও বেশি নিরীহ নাগরিককে হত্যা করার পর সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপন করছে,” বলেন তিনি।

মিয়ানমার নাও এর তথ্যমতে, শনিবার ভোরে ইয়াঙ্গুনের ডালা শহরতলিতে একটি পুলিশ স্টেশনের বাইরে বিক্ষোভরত জনতার উপর নিরাপত্তা বাহিনী গুলি চালালে কমপক্ষে চার জন নিহত হয়। কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমটি।

ইনসেইনের এক প্রতিবাদ কর্মসূচিতে স্থানীয় অনূর্ধ্ব -২১ ফুটবল দলের খেলোয়াড়সহ তিনজনকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

মিয়ানমার নাও জানিয়েছে, মান্ডালের একাধিক ঘটনায় অন্তত ১৩ জন মানুষ মারা গেছেন। মান্ডালের পার্শ্ববর্তী সাগায়িং, বাগো অঞ্চলের লাশিও শহর ও অন্যান্য স্থানের ঘটনায়ও একাধিক মৃত্যু সংবাদ পাওয়া গেছে।

মিয়ানমার নাও এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, শনিবার দিনেই বিভিন্ন স্থানে অন্তত ৯০ জন মানুষ মারা গেছেন। এবিষয়ে জানতে চাওয়ার জন্য মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

রাজধানীতে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে সামরিক প্যারেডের পর নির্বাচন দেওয়ার ঘোষণা দেন সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং, তবে কবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে এসম্পর্কে কিছু জানাননি তার বক্তব্যে।

“গণতন্ত্র রক্ষায় দেশবাসীর সঙ্গে একত্রে কাজ করবে সেনাবাহিনী,” রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশনের লাইভে বলেন তিনি। অং সান সু চির নির্বাচিত সরকারের বিরুদ্ধে সামরিক অভ্যুত্থানের পর শুরু হওয়া বিক্ষোভে এখন পর্যন্ত প্রায় ৪০০ জন মারা গেছেন। দেশটির নাগরিক অধিকারবাদী এক সংগঠনের প্রকাশিত হিসাবে এ তথ্য জানা গেছে।

  • 15
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে