ভ্যাকসিনেশন শুরুর দুই সপ্তাহের মধ্যেই ভ্যাকসিন রপ্তানি করবে ভারত

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৬, ২০২১; সময়: ১:৩৯ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : ভারতে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনেশন শুরু হলে তার ১৫ দিনের মধ্যেই তারা রপ্তানি শুরু করবে বলে বিবিসিকে জানিয়েছেন দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা।

আগের স্থানীয় চাহিদা মেটানোর জন্য ভারত ভ্যাকসিন রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা দিচ্ছে বলে যে খবর গত কয়েকদিন ধরে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে এসেছে, তাও নাকচ করেছেন ওই কর্মকর্তা। বিশ্বে প্রতিবছর যত ভ্যাকসিন উৎপাদিত হয়, তার প্রায় ৬০ শতাংশ তৈরি হয় ভারতে। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং এস্ট্রাজেনেকা মিলে যে ভ্যাকসিনটি তৈরি করেছে উপমহাদেশে সেটি উৎপাদন করছে ভারতের প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউট।

বাংলাদেশসহ অনেক দেশই সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের প্রথম চালান পাওয়ার জন্য অপেক্ষায় আছে। ইতোমধ্যেই ভারতে অনুমোদন পেয়েছে অক্সফোর্ডের তৈরি টিকা। বাংলাদেশেও গত সোমবার এই ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

ভারতে চলতি মাসের মাঝামাঝিতে ভ্যাকসিনেশন শুরু হতে পারে। তবে বাংলাদেশে কবে শুরু হবে তা নির্ভর করছে ভারতের রপ্তানি নিষেধাজ্ঞার উপর। ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই কর্মকর্তা বিবিসিকে বলেন, প্রতিবেশী দেশগুলোকে টিকা দেওয়ার যে প্রতিশ্রুতি তাদের সরকার দিয়ে আসছিল, তা এখনও অটুট রয়েছে।

“আমাদের এখানে টিকা দেওয়া দেওয়া শুরু হলেই ১৫ দিনের মধ্যে দক্ষিণ এশিয়ায় আমাদের প্রতিবেশী কয়েকটি দেশে রপ্তানির অনুমতি দেওয়া হবে। এর মধ্যে কিছু টিকা আমরা উপহার হিসেবে দেব। বাকি টিকা রপ্তানি করা হবে আমাদের সরকার যে দামে টিকা কিনবে, মোটামুটি সেই দামেই।

ভারতীয় ওই কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে বিবিসি লিখেছে, “বিশ্বের সবচেয়ে বড় টিকা উৎপাদনকারী দেশ হিসেবে ভারত প্রতিবেশীদের পাশাপাশি পুরো বিশ্বের প্রতি যে প্রতিশ্রুতি, সে বিষয়ে পুরোপুরি সচেতন আছে।”

  • 28
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে