পাঁচ দিনের কোয়ারেন্টিনের নিয়ম ইংল্যান্ডে

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৫, ২০২০; সময়: ১০:৫৫ am |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : মহামারির দ্বিতীয় প্রবাহ ঠেকাতে নতুন করে লকডাউন ঘোষণা হয়েছে ইংল্যান্ডে। সেই পরিস্থিতিতে ইংল্যান্ডে কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ ১৪ দিন থেকে কমিয়ে ৫ দিনে আনা হল। আগামী ১৫ ডিসেম্বর থেকে এই নতুন নিয়ম চালু হচ্ছে বলে জানাল দেশটির প্রশাসন।

তবে এ ক্ষেত্রে বেশ কিছু শর্ত রাখা হয়েছে। যেমন, ৫ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকার পর কোভিড পরীক্ষা করাতে হবে। তার রিপোর্ট যদি নেগেটিভ আসে, সে ক্ষেত্রে আর বাইরে বের হওয়া নিয়ে নিষেধাজ্ঞা থাকবে না। আর কোয়ারেন্টিনে থাকা এবং কোভিড পরীক্ষার খরচ ওই ব্যক্তিকেই বহন করতে হবে। বাংলাদেশি মুদ্রায় তাতে সব মিলিয়ে খরচ পড়বে ৬ হাজার ৮৬০ টাকা থেকে ১৩ হাজার ৭২১ হাজার টাকার মতো।

ইংল্যান্ডের পরিবহণ সচিব বলেন, ”আমরা যে পরিকল্পনা নিয়েছি, তাতে কিছুটা হলেও নিশ্চিন্ত হতে পারবেন মানুষ। ভ্রমণ হোক বা কাজের প্রয়োজন অথবা অন্যদেশে থাকা প্রিয়জনের সঙ্গে সাক্ষাতে আর বাধা থাকবে না। কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ কমে যাওয়ায় পরিবহণ ক্ষেত্রেও চাঙ্গা হয়ে উঠবে বলে আমাদের আশা।”

দেশ জুড়ে সংক্রমণ ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী হওয়ায় গত ৮ জুন বিদেশফেরতদের জন্য ব্রিটেনে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক করা হয়। শুরু থেকেই সরকারের এই সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধিতা করে আসছে পরিবহণ পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থাগুলো। তাদের যুক্তি ছিল, ১৪ দিনব্যাপী কোয়ারেন্টিন শুনে কোনও পর্যটকও ব্রিটেনে আসার সাহস করবেন না, আর দেশের মানুষও বাইরে যাওয়ার কথা মাথায় আনবেন না। এতে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়তে হবে।

সমালোচনার মুখে পড়ে শেষমেশ বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল করে বরিস জনসন সরকার। যে সমস্ত দেশে করোনার প্রকোপ তুলনামূলক কম, সেখান থেকে আগত যাত্রীদের জন্য কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ কমানো হয়। কিন্তু শুরুতে যে দেশেগুলোকে তুলনামূলক নিরাপদ বলে তালিকাভুক্ত করা হয়েছিল, সংক্রমণবৃদ্ধির কারণে পরবর্তী কালে তালিকা থেকে বহু দেশকে বাদও দেওয়া হয়। তাই কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ কমিয়ে ৫ দিন করায় স্বস্তিতে বহু মানুষ।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

  • 7
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে