কোভিড বুস্টার ডোজের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এড়াতে যা করবেন

প্রকাশিত: এপ্রিল ১৩, ২০২২; সময়: ১১:৫১ am |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : এই বছরের প্রথম মাস থেকেই কমছে করোনা সংক্রমণের হার। সেই সঙ্গে কমছে মৃতের সংখ্যাও। এর কারণ হিসেবে করোনার টিকাকে উল্লেখ করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

দু’টি করে না হলেও অধিকাংশ মানুষের প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে টিকার বুস্টার ডোজ দেওয়াও চলছে।

এদিকে, জ্বর, সর্দি-কাশি বা অন্য কোনো শারীরিক সমস্যায় ভুগলে বুস্টার নিতে যাওয়ার আগে চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলে নিন। টিকা কেন্দ্রে গিয়ে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন।

মাস্ক পরে থাকুন। এছাড়া বুস্টার ডোজের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এড়াতে কিছু বিষয় মেনে চলা জরুরি। চলুন এই বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক-

পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন

পেশিতে ব্যথা, হালকা জ্বর, মাথাব্যথা, শারীরিক দুর্বলতা- টিকা পরবর্তী সময়ে এই সমস্যাগুলো দেখা দিতে পারে। তবে শরীর আর্দ্র থাকলে অসুস্থতার প্রতিরোধ করা সহজ হবে। সে জন্য টিকা নেয়ার আগে এবং পরে প্রচুর পানি পান করা প্রয়োজন।

সুষম খাবার গ্রহণ

বুস্টার ডোজ পরবর্তী শারীরিক সমস্যা এড়াতে শাকসবজি, ভিটামিন ‘সি’ সমৃদ্ধ ফল বেশি করে খান। পুষ্টি সমৃদ্ধ খাবার শরীরে পুষ্টি জোগায়। সহজে দুর্বল হতে দেবে না।

পর্যাপ্ত ঘুম

যেকোনো টিকা নেয়ার পর শরীরে প্রতিরোধ ক্ষমতা কিছুটা কম থাকে। প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে প্রয়োজন পর্যাপ্ত ঘুম। তাই টিকা নেয়ার পর একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের অন্তত ৭-৮ ঘণ্টা ঘুমানো জরুরি।

হালকা শরীরচর্চা করুন

টিকা নেয়ার পর পেশিগুলো নমনীয়তা হারায়। পেশির স্থিতিস্থাপকতা ফিরিয়ে আনতে ও রক্ত চলাচল সচল রাখতে হালকা কয়েকটি শরীরচর্চা করতে পারেন। এতে শরীর ভেতর থেকে চাঙা থাকবে।

কোভিড-বিধি বজায় রাখুন

বুস্টার টিকা দেওয়া হয়েছে মানেই, কোভিড-বিধি ভুলে গেলে চলবে না। টিকা পরবর্তী সময়েও মাস্ক পরুন। হাতে স্যানিটাইজার দিন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন।

অন্তঃসত্ত্বারাও বুস্টার দিতে পারেন

সদ্য মা হয়েছেন। বুস্টার টিকা নেয়ার পর শিশুকে স্তনপান করাতে ভয় পাচ্ছেন? বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মতে, বুস্টার টিকা নেয়ার পর নির্ভয়ে শিশুকে স্তনপান করাতে পারেন। এতে বরং স্তনদুগ্ধের মাধ্যমে শিশুর শরীরে অ্যান্টিবডি প্রবেশ করছে। অন্তঃসত্ত্বারাও নিতে পারেন বুস্টার টিকা।

মদ্যপান এবং ধূমপান এড়িয়ে চলুন

ধূমপান ও মদ্যপান করলে টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আরো বেশি সক্রিয় হয়ে ওঠে। শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। টিকার কার্যক্ষমতা দুর্বল হয়ে যেতে পারে।

বুস্টার ডোজ নেয়ার অন্তত ২৮ দিনের মধ্যে অন্য কোনো টিকা নেবেন না। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে। টিকার কার্যক্ষমতাও নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

বুস্টার ডোজ নেয়ার পরেও জ্বর, সর্দি-কাশি, গলা ব্যথার মতো শারীরিক সমস্যা হতে পারে। তবে এই উপসর্গ যদি বেশি দিন স্থায়ী হয়, তাহলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে