চকলেট খেলেই সারবে গলাব্যথা

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৩, ২০২১; সময়: ২:২৮ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : শীতকাল মানেই ঠাণ্ডা, জ্বর, কাশি, গলাব্যথা ইত্যাদি সমস্যা লেগেই থাকা। এসব সমস্যা ছোট থেকে বড় সবারই হয়ে থাকে।

এমনকি বয়স্করাও এসব রোগ থেকে রক্ষা পায় না। বিশেষ করে শীতে গলাব্যথা হওয়া ভীষণ যন্ত্রণাদায়ক। এর কারণে ঠিকভাবে খাওয়াও যায় না। খাবার গিলতে অনেক কষ্ট হয়।

অনেকেই এই ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে কাশির ওষুধ খেয়ে থাকেন। তবে কাশির ওষুধ ছাড়াও গলাব্যথা দূর করার আরো কার্যকর প্রতিকার আছে ঘরেই। সেটা হলো চকলেট! হ্যাঁ ঠিকই পড়েছেন। চকলেট খেলেই সারবে গলাব্যথা।

হাল বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্ডিওভাসকুলার এবং শ্বাসযন্ত্রের গবেষণা প্রধান অধ্যাপক অ্যালিন মরিস চকলেটের স্বাস্থ্যগত উপকারিতা নিয়ে গবেষণা করেছেন।

স্বাধীন চিন্তাশীল চিকিৎসক মরিস কাশি নিয়ে অনেক বছর গবেষণা করেছেন, তিনি বলেন, চকলেটে কাশি উপশম হয়-এ কথার অকাট্য প্রমাণ রয়েছে।

বৃহত্তম ইউরোপীয় গবেষণায় উঠে এসেছে, কোকোয়াযুক্ত কাশির নতুন ওষুধ, সাধারণ মানের সিরাপের চেয়ে বেশি কার্যকর। যেসব রোগী চকলেট ভিত্তিক ওষুধ খেয়েছেন তারা দুই দিনের মধ্যেই উন্নতি লক্ষ করেছেন।

মরিসের মতে, চকলেটযুক্ত ওষুধ, সাধারণ কাশির সিরাপের তুলনায় বেশি আঠালো। তাই এটি গলার ভেতরে এক ধরনের আবরণ তৈরি করে অভ্যন্তরীণ নার্ভ ফাইবারকে রক্ষা করে।

এর মাধ্যমে ঘন ঘন কাশি হওয়া কমে যায়। চকলেটে অভ্যন্তরীণ নার্ভ ফাইবারের ওপর কিছুটা নিবারক প্রভাব রয়েছে। এজন্য কাশির চিকিৎসায় মধুর চেয়ে কোকোয়া বেশি কার্যকর।

মরিস বলেন, এক টুকরো চকলেট ধীরে ধীরে চেটে খেলে কিছুটা স্বস্তি মিলবে, কিন্তু আমি মনে করি, এভাবে অন্য উপাদানের সঙ্গে চকলেটের মিশ্রণ ভালো কাজ করে।

তবে এক্ষেত্রে গরম কোকোয়া পান করা অতটা ফলপ্রসূ নয়, কারণ কোকোয়া পর্যাপ্ত সময় গলার ভেতরের অংশের সংস্পর্শে না থাকায় কাজ করে না।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে