নারী-পুরুষের বৈষম্য নিয়ে যা বললেন মিমি চক্রবর্তী

প্রকাশিত: মে ৬, ২০২২; সময়: ৭:২০ pm |
খবর > বিনোদন

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : টলিউড অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীর নতুন সিনেমা ‘মিনি’ মুক্তি পেয়েছে। নারীকেন্দ্রিক এই সিনেমার গল্প আবর্তিত হয়েছে এক মাসি ও তার ভাগ্নিকে ঘিরে। মাসির ভূমিকায় আছেন মিমি, আর ছোট্ট ভাগ্নির চরিত্রে অভিনয় করেছেন অয়ন্যা।

এই সিনেমার প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে সমাজে নারী-পুরুষের বৈষম্য নিয়ে কথা বলেছেন মিমি চক্রবর্তী। তিনি বলেন, ‘একটা সংসার সামলানোর নেপথ্যে নারীদের প্রতিদিন যে যুদ্ধ করতে হয়, সেটা আজও অনেকে অস্বীকার করেন। পুরুষতান্ত্রিক সমাজের ধ্যান-ধারণা অনুযায়ী, ঘর সামলানো কিংবা বাচ্চা মানুষ করা কেবলই মেয়েদের দায়িত্ব। মা-মাসিদের কিন্তু এর জন্য আলাদা করে কোনও কৃতিত্ব দেওয়া হয় না। কোনও কর্মজীবী নারীর ক্ষেত্রেও একথা প্রযোজ্য। অফিসের পাশাপাশি সংসার সামলানো, সন্তানকে বড় করে তোলা, অনেক কাজই তো সামলাতে হয়। অন্যদিকে সংসারে পুরুষরা হয়তো শুধু মাস খরচের টাকা হাতে তুলে দিয়েই দায়িত্ব সারেন। আমাদের সিনেমায় এই মনস্তত্ত্ব তুলে ধরা হয়েছে।’

টলিউডে নারীকেন্দ্রিক সিনেমার গুরুত্ব রয়েছে কিনা, সে বিষয়ে মিমি বলেন, ‘নারীকেন্দ্রিক সিনেমা হচ্ছে, তবে একটা কথা বলব, আমরা অনেক সময়েই দেখি, একটা সিনেমায় হয়তো নায়ক-নায়িকা রয়েছে। সেখানে নায়কের লুক আগে প্রকাশ করা হয় কিংবা নায়কদের নিয়েই মাতামাতি থাকে। তখন বুঝিয়ে দেওয়া হয়, নায়িকার চরিত্র আসলে সিনেমায় গুরুত্বপূর্ণ নয়। এই চিন্তাধারাগুলো থেকে বেরিয়ে আসতে পারলে ভালো হয়।’

‘মিনি’ সিনেমায় এক চঞ্চল-প্রাণবন্ত তরুণীর ভূমিকায় আছেন মিমি। যিনি রান্নাবান্না একদমই পারেন না। বাস্তবে কি মিমি রান্না করতে পারেন? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমার ঘনিষ্ঠ বন্ধুবান্ধব, আত্মীয়-পরিজন সবাই জানেন যে আমি কতটা প্রাণবন্ত। জীবনটাকে আসলে উপভোগ করতে ভালবাসি। সবসময়ে হেসে-খেলে মজা করে কাটাই। আর রান্নাটা কোনওদিনই আমাকে করতে হয়নি। বাড়িতেও না। আমি পারিও না রান্না করতে।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে