ছোটবেলায় দেবকে ‘মৃত’ ভেবে নেওয়া হয়েছিল শ্মশানে

প্রকাশিত: আগস্ট ২২, ২০২১; সময়: ৩:০৪ pm |
খবর > বিনোদন

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : কলকাতার তারকা অভিনেতা ও সাংসদ দীপক অধিকারী ওরফে দেবকে শৈশবে মৃত ভেবে শ্মশানে ফেলে রেখেছিল গ্রামবাসী। সম্প্রতি শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়ের সঞ্চালনায় একটি টক শো’তে এসে এমনটাই জানালেন দুই বাংলার জনপ্রিয় এই অভিনেতা। সেই টক শো’তে দেবের সঙ্গে রুক্মিণী মৈত্রও ছিলেন। পুরো ঘটনা শুনে শিউরে ওঠেন তিনি।

দেব জানান, তখন তিনি খুবই ছোট। গাজনের মেলা দেখতে মুম্বাই থেকে মামার বাড়ি যান। সবার সঙ্গে হইহই করতে করতেই গ্রামের মেলায় ঢোকেন। সেখানেই সম্ভবত কেউ কিছু খাইয়ে দিয়েছিল তাকে। সঙ্গে সঙ্গে অজ্ঞান হয়ে যান তিনি। টানা একটি দিন জ্ঞান ফেরেনি তার! এদিকে গ্রামবাসী ভেবেছিলেন, তিনি মৃত। নির্দিষ্ট সময়ের পরে তাকে দাহ করতে নিয়ে যান শ্মশানে।

অভিনেতা জানান, নিখোঁজ হতেই তার নানা তাকে হন্যে হয়ে খুঁজছেন। আর কাঁদছেন, কী জবাব দেবেন মেয়ে-জামাইকে। এদিকে শ্মশানে ফেলে রেখে যাওয়ার একদিন পরে জ্ঞান ফেরে দেবের। সারারাত খোঁজাখুঁজির পর তাকে খুঁজে পান নানা-মামারা। তার নানা ততক্ষণে প্রতিজ্ঞা করে ফেলেছেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দেবকে বাড়ি পাঠিয়ে দেবেন। কারণ, তিনি তার মেয়ের একমাত্র সন্তান।

দেব আরও জানান, সেই সময় তার জন্য মানত করেছিলেন তার নানা, নাতিকে খুঁজে পেলে বড় হওয়ার পর তিনি তাকে দিয়ে গাজনের সন্ন্যাস পালন করাবেন। নানার মানত রাখতে মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়ার পরে আবার গ্রামে যান দেব। এক সপ্তাহের জন্য তিনি হয়েছিলেন গাজনের সন্ন্যাসী। অন্যান্য সন্ন্যাসীদের মতো তখন তিনিও মন্দিরে থাকতেন।

উল্লেখ্য, আজই (২২ আগস্ট) মুক্তি পেয়েছে দেবের নতুন সিনেমা ‘কিশমিশ’। নবীন পরিচালক রাহুল মুখোপাধ্যায়ের এই সিনেমায় দেবের বিপরীতে দেখা যাবে রুক্মিণী মৈত্রকে।

  • 164
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে