হাজার বছর আগের গল্পে আকাশচুম্বী দর্শকপ্রিয়তা যে তামিল সিনেমার (ভিডিও)

প্রকাশিত: মার্চ ১৪, ২০২১; সময়: ১১:০১ am |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : হাজার বছর আগের গল্প, কিন্তু দর্শকপ্রিয়তা পেয়েছে আকাশচুম্বী। এতো পুরনো গল্পও যে দর্শকদের মন জয় করে নিতে পারে তার জলন্ত প্রমাণ তামিল সিনেমা ‘আখিল’। সিনেমাটির শুরুতেই শোনা যাবে সূর্যের শক্তিশালী রশ্মির কারণে ভবিষ্যতে পৃথিবী ধ্বংসের মুখোমুখি হবে এমন ভবিষ্যৎবানী।

সিনেমাটি কল্পকাহিনীতে ভরা। ভারতের কিছু সাধু পৃথিবী ধ্বংসের পূর্বাভাস দিয়েছিলেন। সর্বাধিক শক্তিশালী এবং শক্তিশালী ধাতুগুলির সাথে একটি গোলক তৈরি করেন যা একটি ক্ষমতার অধিকারী যা ক্ষতিকারক ইউভি রশ্মিকে শোষণ করে তাই এটি পৃথিবীকে রক্ষা করে। যেহেতু এটি পৃথিবীর নিরক্ষীয় অঞ্চলে স্থাপন করতে হয় তারা আফ্রিকার কঙ্গোলিয়ার একটি গোত্রকে গোলক দেয়।

আফ্রিকান উপজাতি এই গোলকের নাম দিয়েছেন জুয়া (আফ্রিকার সূর্যের নাম)। এখন গল্পটি আজকের দিকে এগিয়ে চলেছে যেখানে একজন রাশিয়ান ডন জুয়া দখল করার পরিকল্পনা করছিল যাতে বিশ্ব ধ্বংসের সময় তার সমাধান হবে এবং সে মনে করে যে সে বিশ্বকে শাসন করতে পারে। এ জন্য তিনি একজন ভারতীয় ডনের সাহায্য চাইছেন।

ইন্ডিয়ান ডন জুয়া পেতে তার গোষ্ঠীগুলিকে উপজাতির কাছে প্রেরণ করে তবে গোত্রের এক তরুণ স্নাতক বোডো এটিকে নিয়ে পালিয়ে যায়। এখন গল্পটি হায়দরাবাদে চলে এসেছে যেখানে আখিল (আখিল আক্কেনিনি) নামে এক অল্প বয়স্ক ও যত্নশীল এতিম রোজগার করার জন্য রাস্তায় লড়াই করে এবং বন্ধুদের সাথে উদযাপন করে।

একদিন, আখিল একটি মেয়ে দিব্যা (সায়্যাশা) এর সাথে দেখা করে সঙ্গে সঙ্গে তার প্রেমে পড়ে যায়। এক পর্যায়ে দিব্যার কোলে খরগোশ দেখে আখিল নিজেকে প্রাণী চিকিৎসক পরিচয় দেন। এতে মুগ্ধ হয় দিব্যা। কিন্তু বিপাকে পড়ে যায় আখিল, কারণ খরগোশটি অসুস্থ হয়ে যাওয়ায় তার অপারেশন করতে হবে বলে তার ওপর দায়িত্ব পড়ে। আখিল এবার সার্জারির জন্য ডিভিয়ার কলেজের অধ্যক্ষ কেভির শরণাপন্ন হন। জটিল এই অপারেশন সফল হয়। পরে দিব্যা আখিল এবং তার বন্ধুদের তার বিয়েতে আমন্ত্রণ জানায়।

আখিল বিয়ে ভাঙার চক্রান্ত করে কিন্তু জানতে পারে যে দিব্যার বাগদত্তা কিশোর (ভেনেলা কিশোর) অন্য কোনও মেয়ের সাথে প্রেম করছে। এবার সেই সুযোগ নেয় দিব্যা। এভাবেই নানা নাটকীয়তায় চলতে থাকে তাদের গল্প। এর মাঝে নানা হাস্যরসের ঘটনা দর্শকদের সিনেমাটিতে ধরে রাখতে ব্যাপক ভূমিকা পালন করেছে। গল্পের স্ক্রিপ্ট ও পরিচালনা ছিল অসাধারণ, তার সঙ্গে জঙ্গলের নানা প্রাকৃতিক দৃশ্য যেকোনো দর্শককে মুগ্ধ করবে।

  • 8
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে