গালাগাল করে টুইটারে শাস্তি পেলেন কঙ্গনা

প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২১; সময়: ১০:৪৪ am |
খবর > বিনোদন

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : কিছু দিন আগেই টুইটারের নিয়ম ভঙ্গ করায় সাময়িকভাবে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছিল ভারতীয় অভিনেত্রী কঙ্গনার একাউন্টে। দিন কয়েক যেতেই আবারো টুইটারের কোপ খেলেন তিনি। এবার নিষেধাজ্ঞায় পড়েন নি, তার করা দুটি টুইট সরাসরি মুছে দিয়েছে টুইটার কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে কঙ্গনা রানাওয়াত পরপর দুটি টুইট করেন,যা কিছুক্ষণের মধ্যেই মুছে দেয় টুইটার কর্তৃপক্ষ। দুটি টুইটই ছিল কৃষিবিল বিরোধী আন্দোলন সংক্রান্ত।

এ ব্যাপারে একটি আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিয়েছে টুইটার কর্তৃপক্ষ। বিবৃতিতে তারা জানিয়েছে, আমরা সেসব টুইটের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নিয়েছি যা টুইটারের নিয়মবিধি বিরুদ্ধ।

কৃষক আন্দোলনের সমর্থনে মুখ খোলায় বুধবার টুইটারে আন্তর্জাতিক পপতারকা রিহানাকে কটাক্ষ করেন কঙ্গনা। তাদকে ‘সন্ত্রাসবাদীদের বন্ধু’, পর্ন গায়িকা, বোকা নানান শব্দবাণে বিদ্ধ করেন অভিনেত্রী। সামজকর্মী গ্রেটা থুনবার্গকেও ‘ইঁদুর’ বলে আক্রমণ শানান কঙ্গনা রানাওয়াত।

কঙ্গনার যে দুটি টুইট মুছে দেওয়া হয়েছে, তার মধ্যে একটি রোহিত শর্মার টুইটের প্রেক্ষিতে লেখা। রিহানা ও গ্রেটা কৃষক আন্দোলনের সমর্থনে টুইট করবার পরই আর্ন্তজাতিক মহলে অস্বস্তিতে পরে ভারত।

এসবের মধ্যেই টুইটারে মুখ খুলেন ভারতের সাবেক ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার। বলেছেন, ভারতের সার্বভৌমত্ব নিয়ে কোনো নয়। বাইরের লোকেরা দর্শক হতে পারে, কিন্তু অংশগ্রহণকারী হতে পারবে না। ভারতীয়রা ভারতকে চেনে এবং নিজেরা সিদ্ধান্ত নেবে।

জাতি হিসেবে ভারতের সকলকে এক থাকার আহবানও জানিয়েছেন শচীন টেন্ডুলকার।

একই প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন বিরাট কোহলিও। টুইটে তিনি লিখেছেন, দ্বিমতের সময়টায় সবাই এক থাকি। কৃষকরা দেশের অবিচ্ছেদ্য অংশ। আমি বিশ্বাস করি সব দলের মধ্যে শান্তি বজায় থাকবে এবং সামনে এগিয়ে যাওয়ার একটা পথ বের হবে।

অনীল কুম্বলেও টুইট করে লিখেছেন, বিশ্বের সবচেয়ে বড় গণতান্ত্রিক দেশ হিসেবে ভারত তার অভ্যন্তরীণ বিষয়ের সমাধান নিজেই করতে পারবে।

  • 12
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে