ভারতকে বিদায় জানাচ্ছে ফোর্ড

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১১, ২০২১; সময়: ১২:০৩ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : ভারতের দুটি বৃহত্তম প্ল্যান্ট বন্ধ করে দিচ্ছে মার্কিন গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ফোর্ড। সেইসাথে পুরো ভারতে উৎপাদনই বন্ধ করে দিতে যাচ্ছে এই কোম্পানি। এই সিদ্ধান্তে বেকার হয়ে পড়বে ফোর্ডে কাজ করা হাজার হাজার ভারতীয়।

সম্প্রতি ফোর্ডের প্রধান নির্বাহী জিম ফার্লি জানান, প্রতিষ্ঠানের পুনর্গঠন পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এই লক্ষ্যে ব্যয় করা হবে ২০০ কোটি ডলার। এরমধ্যে আছে ২০২১ সালে ৬০ কোটি ডলালের প্রিট্যাক্স চার্জ আর ২০২২ সালের ১২০ কোটি ডলারের প্রিট্যাক্স চার্জ। বাকি ৩০ কোটি ডলার ব্যয় হবে অন্যখাতে। ফোর্ডের ভারতের চেন্নাই আর সানান্দে দুটি গাড়ি আর ইঞ্জিনের প্ল্যান্ট আছে।

চলতি বছরের শেষ নাগাদই আর এই কারখানাগুলো সচল থাকবে না। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের পর প্রায় ৯ হাজার ভারতীয় বেকার হবেন। তবে ভারতে স্বল্প পরিসরে উৎপাদন কার্যক্রম চালু রাখার পরিকল্পনা আছে বলেও জানায় ফোর্ডের প্রধান নির্বাহী। সারা দেশে বেশি বেতনে অন্তত ১১ হাজার কর্মকর্তা কর্মচারীকে নিয়োগ দিতে চায় ফোর্ড।

ভারতে গত ১০ বছরে ২০০ কোটি ডলারেরও বেশি লোকসানের মুখোমুখি হয়েছে ফোর্ড। এ প্রেক্ষিতে দেশটিতে গাড়ি উৎপাদন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন গাড়ি নির্মাতা সংস্থাটি। ব্রাজিলে সংস্থাটির তিনটি কারখানা বন্ধের এক বছরেরও কম সময়ের মধ্যে তারা ভারতেও উৎপাদন বন্ধের সিদ্ধান্ত নিল। ১৯১৯ সাল থেকে ব্রাজিলে গাড়ি উৎপাদন করে আসছিল ফোর্ড। এসোসিয়েটেড প্রেসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতে কারখানা বন্ধ করে দিলে প্রায় চার হাজার ফোর্ড কর্মী তাদের চাকরি হারাবেন। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে এ তথ্য জানিয়েছে ফোর্ড।

গত বছর ফোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর জিম ফারলি ইঙ্গিত দিয়েছিলেন, সংস্থাটি দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির দিকে বেশি নজর দিচ্ছে। এ অর্থনীতিগুলোই সংস্থাটির মুনাফা প্রবৃদ্ধির চালিকাশক্তি হিসেবে কাজ করে। ফারলি বলেন, দীর্ঘমেয়াদে একটি টেকসই লাভজনক ব্যবসা দাঁড় করাতে এবং সঠিক জায়গায় মূলধন বরাদ্দ দিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। যদিও এ সিদ্ধান্ত নেয়া কঠিন। ভারতে উল্লেখযোগ্যভাবে বিনিয়োগ করার পরও ফোর্ড লোকসানের মুখোমুখি হয়েছে। দেশটিতে নতুন যানবাহনের চাহিদাও পূর্বাভাসের তুলনায় অনেক কমে গেছে।

সংস্থাটির তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯ সালে গাড়ি উৎপাদনের বাইরের কার্যক্রম থেকে ফোর্ড প্রায় ১০০ কোটি ডলার লোকসানের রেকর্ড করেছে। সংস্থাটি ভারতে শিগগিরই গাড়ি উৎপাদন বন্ধ করবে। চতুর্থ প্রান্তিকে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) ফোর্ড গুজরাটের সানন্দের কারখানা বন্ধ করে দেবে। গাড়ি ও ইঞ্জিন সংযোজন কারখানাটিতে প্রায় তিন হাজার কর্মী কাজ করেন। এছাড়া চেন্নাইয়ের কারখানাটিতে উৎপাদন বন্ধ হবে আগামী বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন)। ফোর্ডের গাড়ি ও ইঞ্জিন সংযোজন করা এ কারখানাটিতে প্রায় পাঁচ হাজার কর্মী কাজ করেন।

উৎপাদন বন্ধ করে দিলেও ভারতের গ্রাহকরা যন্ত্রপাতি ও ওয়ারেন্টি পরিষেবা পাবেন বলে জানিয়েছে ফোর্ড। সংস্থাটির তথ্য অনুযায়ী, ভারতে ইঞ্জিনিয়ারিং, প্রযুক্তিগত ও ব্যবসায়িক বিভাগের কার্যক্রম চালিয়ে যাবে ফোর্ড। উৎপাদন বন্ধের পর সংস্থাটি দেশটিতে যানবাহন আমদানি শুরু করবে।

  • 18
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে