অপহরণ করে মুক্তিপণ মামলায় এএসপিসহ ৫ জন কারাগারে

প্রকাশিত: আগস্ট ২৫, ২০২১; সময়: ১০:০১ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার নান্দেরাই গ্রাম থেকে মা ও ছেলেকে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবির অভিযোগে করা মামলায় এক সহকারী পুলিশ সুপারসহ (এএসপি) ৫ জনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বুধবার দিনাজপুরের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (চিরিরবন্দর-৪) আদালতের বিচারক শিশির কুমার বসু এ আদেশ দেন।

এ ছাড়া আদালত অপহরণের শিকার জহুরা বেগম ও তাঁর ছেলে জাহাঙ্গীর আলমের বক্তব্য লিপিবদ্ধ করেছেন। বিচারক তাদের ছেড়ে দেওয়ার আদেশ দেন বলে জানান চিরিরবন্দর থানার ওসি সুব্রত কুমার সরকার।

এই পাঁচজন হলেন রংপুর সিআইডির এএসপি সারোয়ার কবির, এএসআই হাসিনুর রহমান, কনস্টেবল আহসানুল হক, গাড়িচালক হাবিব মিয়া এবং যার অভিযোগের ভিত্তিতে মা-ছেলেকে তুলে নেওয়া হয় সেই দিনাজপুর সদর উপজেলার বাসিন্দা ফসিহ উল আলম পলাশ।

দিনাজপুর কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক মো. মনিরুজ্জামান পাঁচজনকে কারাগারে পাঠানোর খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আদালতের আদেশ পাওয়া মাত্র পাঁচজনকে দিনাজপুর জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে গত সোমবার রাতে সিআইডির তিনজন নান্দেরাই গ্রামের লুৎফর রহমানকে ধরতে যান। তাঁকে না পেয়ে তাঁর স্ত্রী ও ছেলেকে বাড়ি থেকে তুলে নেন। পরে মুক্তিপণ দাবি করেন। এ ঘটনায় পরের দিন মঙ্গলবার সকালে লুৎফর রহমানের ভাই খলিলুর রহমান চিরিরবন্দর থানায় ৬ থেকে ৭ জনের নামে অভিযোগ করেন।

লুৎফর রহমানের স্বজনেরা মুক্তিপণের টাকা নিয়ে দিনাজপুরের দশমাইল এলাকায় অপহরণকারীদের সঙ্গে দেখা করতে গেলে স্থানীয় জনতা তাদের আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন। পরে বুধবার অভিযোগটি মামলা আকারে গ্রহণ করে চিরিরবন্দর থানা।

  • 621
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে