নির্ভেজাল পদ ও ফের সুপারিশের দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত: মে ১১, ২০২২; সময়: ১২:৪৩ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তিতে ভুল চাহিদায় সুপারিশপ্রাপ্ত শিক্ষকদের ঝামেলামুক্ত নির্ভেজাল পদ ও প্রতিষ্ঠানে দ্রুত পুনরায় সুপারিশের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন ভুক্তভোগীরা।

বুধবার (১১ মে) সকালে এনটিআরসিএ কার্যালয়ের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

ভুল চাহিদায় সুপারিশপ্রাপ্ত শিক্ষক ফোরামের অন্যতম সমন্বয়ক মো. তৈয়ব হোসেন বলেন, আমাদের অনেকেই তৃতীয় গণবিজ্ঞপ্তিতে নিয়োগের সুপারিশ পেয়েও যোগদান করতে পারিনি। অনেকে নিয়োগ পেয়েও এমপিওভুক্ত হতে পারছে না।

আমাদের নারী কোটার সমস্যা আছে, প্যাটার্নজনিত সমস্যা আছে। জেনারেল শাখায় আবেদন করে যোগদান করতে গিয়ে দেখি কারিগরি শাখায় সুপারিশ পেয়েছি। আমরা আশা করছি, এনটিআরসিএ দ্রুত এসব সমস্যার সমাধান করবে।

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীর রুবিরহাট বঙ্গবন্ধু হাই স্কুলে নিয়োগের সুপারিশ পাওয়া মো. জাবেদ হোসেন বলেন, আমাদের প্রতিষ্ঠান থেকে ৬ জনের চাহিদা দেওয়ার পরপরই প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ করা হয়। এরপর প্রতিষ্ঠান প্রধান ৬ জনের চাহিদা বাতিলের জন্য এনটিআরসিএ বরাবর আবেদন করে।

কিন্তু তারা ৫ জনের চাহিদা বাতিল করলেও আমাকে সুপারিশ করে। এখন প্রতিষ্ঠান প্রধান বলছেন, আমাদের স্কুল জাতীয়করণ করা হয়ে গেছে, আপনি যোগদান করতে পারবেন না। আমি বিষয়টি নিয়ে এনটিআরসিএ-তে অভিযোগ দিয়েও কোনো সুরাহা পাইনি।

মানববন্ধনে তারা বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন। সেগুলোতে লেখা- ‘প্যাটার্ন জটিলতায় ভুক্তভোগী আমি কেন হব, কর্তৃপক্ষের কাজ তাহলে কি’, ‘জেনারেল সার্টিফিকেট ধারী হয়ে জেনারেল পদে আবেদন করে কেন কারিগরিতে নিয়োগ সুপারিশ পেয়ে নিয়োগ ও এমপিও বঞ্চিত আছি’, ‘নারী কোটার দায় আমাকে কেন নিতে হবে’, ‘এমপিও পদে আবেদন করে নন-এমপিও পদে নিয়োগ পাওয়ার কারণ কি’, ‘বিজ্ঞান শিক্ষক থাকার পরও কেন ভৌত বিজ্ঞান চাহিদা দিল, এর দায় কেন আমরা নেব’।

মানববন্ধন শেষে এনটিআরসিএ সচিব ওবায়দুর রহমান বরাবর স্মারকলিপি দেয় ভুক্তভোগী শিক্ষকরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে