ইংরেজির বাধা টপকাতে পারলে পথ মসৃণ

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৩, ২০২১; সময়: ১২:১৫ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : দরজায় কড়া নাড়ছে দেশের সাতটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা। পরীক্ষায় ভালো করার জন্য সাজানো গোছানো ও ‘বেসিক’ সমৃদ্ধ পড়াশোনার কোনো বিকল্প নেই।

দীর্ঘদিন একই সিলেবাসে পড়াশোনা করেছে সবাই। পরীক্ষার আগ মুহূর্তে এখন দরকার নিজেকে একটু ঝালিয়ে নেওয়া। তবে এই মুহূর্তে এর চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ হলো শত হতাশাকে ছুড়ে ফেলে নিজের চেষ্টাকে ধরে রাখা।

হতাশার ভিড়ে দৃঢ় সংকল্পই একজনকে নিয়ে যেতে পারে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সবুজ ক্যাম্পাসে। আগামী ২৭ নভেম্বর একযোগে ৭টি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন হবে। ভর্তি পরীক্ষায় ভালো করতে শেষ সময়ের প্রস্তুতি নিয়ে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা দিয়েছেন বেশ কিছু পরামর্শ।

পদার্থবিজ্ঞান এবং গণিত
ভর্তি পরীক্ষায় মোটামুটি নম্বর পেলেই কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া সম্ভব। পদার্থ ও গণিত বিষয়ে ভালো নম্বর পেতে হলে একটু কৌশলী হতে হবে। পদার্থ বিজ্ঞান থেকে ২০টি প্রশ্ন এবং গণিত থেকে ২০টি প্রশ্ন থাকবে। ভর্তিচ্ছুদের প্রথম কাজ হবে বিগত বছরের ভর্তিপরীক্ষাগুলোর প্রশ্ন সমাধান করা।

পদার্থবিজ্ঞান ও গণিতের সূত্র মুখস্থ রাখতে হবে। পদার্থবিজ্ঞানে গুরুত্বপূর্ণ বছর এবং পদার্থবিজ্ঞানীদেন নাম অনুশীলন এবং মাত্রিক সমীকরণের পাশাপাশি বিভিন্ন এককগুলো মনে রাখতে হবে। গণিতে আগে আসা টপিকগুলো অনুসারে গুরুত্বপূর্ণ সমস্যাগুলো অনুশীলন করতে হবে। গাণিতিক সমস্যা সমাধানে শর্টকাট টেকনিক প্রয়োগ করতে পারলে বাড়তি সুবিধা পাওয়া যাবে।
ইমরান হামিদ
সম্মান তৃতীয় বর্ষ, কৃষি অনুষদ
বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

রসায়ন
বিগত বছরের প্রশ্ন জরিপ করলে দেখা যায় মেডিকেলের প্রশ্নের সাথে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্নে অনেক মিল রয়েছে। এক্ষেত্রে হাজারী-নাগ স্যারের বই ভালোভাবে পড়তে হবে। ইলেক্ট্রন বিন্যাস, শিখা পরীক্ষা, মোলারিটি, সক্রিয়তা সিরিজ, জারন-বিজারণ, গ্যাসের সূত্র, ন্যানোটেকনোলজি, প্রভাবক, বিভিন্ন প্রসাধনী, নামধারী বিক্রিয়া, উৎপাদক এগুলো ভালো করে পড়তে হবে। রসায়নের জন্য বিক্রিয়া মনে রাখাই ভালো। জৈব যৌগ থেকে গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রস্তুতপ্রণালী, বিক্রিয়াতে কী কী প্রভাবক লাগে, কার উপস্থিতিতে ঘটে এগুলো মনে রাখতে হবে। এ জন্য সবচেয়ে ভালো হয় নিজে নিজে ছক করে পড়লে। একটা ছক তৈরি করে নিয়ে বইয়ে অথবা টপিক ভিত্তিক খাতায় নোট করে পড়াটা সহজ হবে। বিগত বছরের প্রশ্নে অবশ্যই নজর দিতে হবে। বইয়ের উদাহরণ এমসিকিউ সবগুলো অনুশীলন করতে হবে।
মাহাবুব হক নিরব
সম্মান তৃতীয় বর্ষ, কৃষি অনুষদ
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

জীববিজ্ঞান
জীববিজ্ঞান কারো কারো কাছে মজার, আবার অধিকাংশের কাছে ভীতির অন্য নাম। কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে হলে এ বিষয়টাকে এড়িয়ে চলার কোনো সুযোগ নেই। কারণটা সবারই জানা, শুধু জীববিজ্ঞান থেকেই ভর্তি পরীক্ষাতে ৩০ শতাংশ প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। যেখানে ১৫ নম্বর থাকে উদ্ভিদবিজ্ঞান, বাকি ১৫ নম্বর থাকে প্রাণিবিজ্ঞান থেকে।

কৃষিবিজ্ঞান যেহেতু উদ্ভিদ ও প্রাণি নিয়েই উচ্চতর পড়াশোনার বিষয়, সেহেতু ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের জীববিজ্ঞানে ভিত্তি কতটা মজবুত সেটা যাচাই করা হয়। যাদের আগেই মেডিকেল ভর্তি প্রস্তুতি ছিল তারা অনেকটাই এগিয়ে থাকবে। কারণ, মেডিকেল এবং কৃষি ভর্তি পরীক্ষায় জীববিজ্ঞান অংশে প্রায় একই ধরনের প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। যেকোনো কিছুর প্রকারভেদ, সাথে উদাহরণ ভালোভাবে আয়ত্ত্বে রাখতে হবে। সহজে মনে রাখার জন্য বিভিন্ন সূত্র ও ছন্দ মিলিয়ে পড়লে কাজে দেবে। উদ্ভিদবিজ্ঞান থেকে সব অধ্যায়ের পাশাপাশি কোষের গঠন, শারীরতত্ত্ব, অণুজীব, শৈবাল ও ছত্রাক, উদ্ভিদের প্রজনন অধ্যায়গুলোতে বাড়তি নজর রাখতে হবে, আর প্রাণিবিজ্ঞান থেকে মানবদেহের অধ্যায়গুলোই যথেষ্ট।

কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন কখনোই খুব কঠিন করা হয় না। মাথা ঠান্ডা রেখে পরীক্ষা দিতে পারলে ভর্তির সুযোগটা অনেকাংশে বেড়ে যাবে।
মো. মারুফ হোসেন
সম্মান দ্বিতীয় বর্ষ, কৃষি অনুষদ
শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

ইংরেজি
গতবারের মতো এবারও অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে গুচ্ছ পদ্ধতিতে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ভর্তি পরীক্ষা। পরীক্ষায় পদার্থ, রসায়ন, জীববিজ্ঞান ও গণিতে মোটামুটি সবাই ভালো করে। কারণ বেশিরভাগ সময়টাই কাটে এসব বিষয় নিয়ে, কেউ ইংরেজিতে তেমন জোর দেয় না। কিন্তু যারা ইংরেজিতে একটু ভালো করে, দিন শেষে তারাই এগিয়ে থাকে।

ভর্তি পরীক্ষায় ইংরেজিতে থাকবে ১০ নম্বর। যার মধ্যে বেশিরভাগ প্রশ্ন হবে ‘বেসিক গ্রামার’ থেকে। প্রস্তুতি না নিলেও ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির বেসিক ধারণা থেকে ৪-৫টা উত্তর করা সম্ভব। এর মধ্যে রাইট ফর্ম অব ভার্ব, সেনটেন্স, প্রিপোজিশন, ন্যারেশন, ভয়েস চেঞ্জ, স্পেলিং, সাবজেক্ট-ভার্ব অ্যাগ্রিমেন্ট, সিনোনিম-অ্যান্টোনিম, প্রোভার্ব, ট্রান্সলেশন অংশ থেকে ১-২টি করে প্রশ্ন থাকতে পারে। প্রতিটি অংশের ব্যতিক্রম নিয়মগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এগুলো ভালো করে পড়লে ৭-৮ নম্বর খুব সহজেই পাওয়া সম্ভব।
কাজী রকিব উদ্দিন
সম্মান তৃতীয় বর্ষ, ফিসারিজ অনুষদ
সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে