আলোচনায় বসার আশ্বাসে রাবিতে আন্দোলন স্থগিত

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১২, ২০২১; সময়: ৬:০১ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাবি : আলোচনায় বসার আশ্বাস ও এক শিক্ষকের মৃত্যুর ঘটনায় আন্দোলন স্থগিত করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শাখা ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান চাকরি প্রত্যাশী নেতাকর্মীরা। মঙ্গলবার দুপুরে রাবি প্রশাসনের পক্ষ থেকে বুধবার আলোচনায় বসার আশ্বাস দিলে আন্দোলন স্থগিত করা হয়।

তথ্যটি নিশ্চিত করে চাকুরি প্রত্যাশী রাবি শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, আজ দুপুরে দুই উপ-উপাচার্যের সমন্বয়ে গঠিত একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে আমাদের আলোচনা হয়েছে। আলোচনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আখতার ফারুক স্যার মারা যাওয়ায় তারা অন্তত আজকের দিনটিতে আন্দোলন স্থগিত করতে অনুরোধ করেন। তাই আমরা ফারুক স্যারের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আমাদের আন্দোলন স্থগিত করেছি। বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য আগামীকাল (বুধবার) দুপুর ১২টায় আমাদের সাথে আলোচনায় বসতে চেয়েছেন। আলোচনা ফলপ্রসু হলে আমরা সরে যাবো। নাহলে অনির্দিষ্টকালের জন্য আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

এদিন দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষে উপ-উপাচার্যদ্বয় অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও চৌধুরী মো. জাকারিয়া, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আবদুস সালাম, প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান প্রশাসন ভবনে ছাত্রলীগের ছয়জন নেতাকর্মীর সঙ্গে আলোচনায় বসেন।

এ বিষয়ে প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, আগামীকাল দুপুর ১২ টায় আলোচনায় বসা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অধ্যাপকের মৃত্যু এবং প্রশাসনের আলোচনায় বসার আশ্বাস সব মিলিয়ে তারা আন্দোলন স্থগিত করেছে।

জানতে চাইলে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার বলেন, আন্দোলনকারীরা শিক্ষকদের প্রতি সম্মান জানিয়ে আজকের মত আন্দোলন স্থগিত করেছে। আগামীকাল (বুধবার) আবার তাদের সঙ্গে আলোচনা হবে।

এর আগে সোমবার দুপুরে রেজিস্ট্রার দপ্তরের এড-হকে একজন প্রতিবন্ধীর চাকরি নিশ্চিত হলে সন্ধ্যার দিকে অন্য চাকরি প্রত্যাশীরা উপাচার্য ভবনের সামনে জড়ো হন। কিছুক্ষণ অবস্থানের পরে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়ার নেতৃত্বে ছয় জনের একটি দল উপাচার্যের সঙ্গে দেখা করেন। উপাচার্য তাদের চাকরি নিশ্চিতের বিষয়ে আশ্বস্ত না করলে বাহিরে এসে রাত নয়টায় উপাচার্যের বাসভবনের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেয় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান কমিটির চাকরি প্রত্যাশী নেতাকর্মীরা।

প্রায় ১২ঘণ্টা পর মঙ্গলবার সকাল আটটটায় উপাচার্য ভবনের তালা খুলে দেয়া হয়। এদিন সকাল নয়টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইটি প্রশাসনিক ভবনে তালা লাগিয়ে দেয় আন্দোলনকারীরা। দুপুরে রাবি প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা বসেন তারা।

  • 25
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে