রাবিতে দুই দিনব্যাপী জাতীয় ডিএনএ সম্মেলন শুরু

প্রকাশিত: মে ২, ২০১৯; সময়: ৭:১৬ pm |
নিজস্ব প্রতিবেদক, রাবি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) দুই দিনব্যাপী জাতীয় ডিএনএ সম্মেলন শুরু হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে সম্মেলনের উদ্ধোধন করেন রাবি উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান।
এবারের সম্মেলনের প্রতিপাদ্যে বিষয় ‘ন্যাশনাল কনফারেন্স অন ডিএনএ এন্ড জিনোম রিসার্চ ফর সাস্টেইনেবল ডেভেলপমেন্ট ইন এগ্রিকালচার এন্ড হেলথ’। বাংলাদেশ বায়োইনফরমেটিক্স এ- কম্পিউটেশন্যাল বায়োলজি এসোসিয়েশনের সহযোগিতায় রাবি বায়োইনফরমেটিক্স রিসার্চ গ্রুপ ও রাবি সায়েন্স ক্লাব যৌথভাবে এ সম্মেলনের আয়োজন করে।
সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান বলেন, বাংলাদেশে সময়ের সঙ্গে জনসংখ্যা বাড়ছে কিন্তু আবাদি জমির পরিমাণ কমছে। তাই দেশের খাদ্য চাহিদা মিটাতে কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির কোনো বিকল্প নেই। এক সময় যে আবাদি জমিতে কেবল পাঁচ মন আমন এবং আউশ ধান ফলতো। বিজ্ঞানের বদোলতে সেখানে এখন উৎপাদন বেড়েছে কয়েকগুণ।
তিনি আরও বলেন, একটি দেশের উন্নয়নের ক্ষেত্রে ওই দেশের সরকারের ভূমিকা অপরসীম। বর্তমান সরকারের দূরদর্শীতার কারনে বাংলাদেশে এখন ডিএনএ, জিনোমসিকোয়েন্সসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে গবেষণা হচ্ছে। পাটের জীবন রহস্য, ইলিশের জিনোসিকোন্সে আবিষ্কার করা হয়েছে। বিজ্ঞানের বদোলতে সেখানে এখন উৎপাদন বেড়েছে কয়েকগুণ। তবে বিজ্ঞানীদের মনে বিভিন্ন কারনে দুঃখ-কষ্ট থাকতে পারে কিন্তু সকল দুঃখ কষ্ট ভুলে দেশের অগ্রগতির জন্য কাজ করতে হবে। তবেই বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলার যে স্বপ্ন তা বাস্তবায়িত হবে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়াসহ পরিবেশ ও ভূ-বিজ্ঞান অনুষদের ডিন্ অধ্যাপক নজরুল ইসলাম, টিএমএসএস এর প্রতিষ্ঠাতা ড. হোসনে আরা বানু উপস্থিত ছিলেন।
দুই দিনব্যপী এ সম্মেলনে বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় এবং গবেষণা প্রতিষ্ঠানের ২৩ জন গবেষক এবং বিজ্ঞানী তাদের গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করবে। এতে বাংলাদেশের প্রখ্যাত তিন জন গবেষক কি-নোট স্পিকার হিসেবে রয়েছেন। এরা হলেন- ইন্সটিটিউট ফর ডেভলপিং সাইন্স এন্ড হেলথ ইনিসিয়েটিভস এর প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি ড. ফেরদৌসী কাদরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ড. সৈয়দ সালেহিন কাদরী, এবছর স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত গবেষক ড. হাসিনা খান। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আগত প্রায় ২০০জন তরুণ গবেষক পোস্টার প্রেজেন্টেশন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করছে।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে