ঢোঁড়া ও বালুচরী

ঢোঁড়া ও বালুচরী

০১ জীবন বদল করো তুমি ও ঢোঁড়া সাপ। অথচ তুমি একটা একটা হরিণ পুষেছিলে। প্রতিরাতে তোমার রক্ত পান করত সে। দিনের বেলা মায়াবী..

দুঃসময়

দুঃসময়

বুক পাঁজরের জমিনে প্রতিনিয়ত বাড়ে ঝাঁক বাঁধা আতংক থেকে জন্ম নেয়া বৃক্ষগুলো, দস্যু সময় ছিনিয়ে নিয়ে যায় তারুণ্যের গন্ধ মাখা সকালগুলো। উদাস দুপুরে ক্লান্ত মন নীড়ে হঠাৎ ফোটা ফুল নিমিষে হারায় সুবাস, মহামারী মুক্ত পৃথিবীর..

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সাহিত্য পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব হস্তান্তর

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সাহিত্য পরিষদের সভাপতির দায়িত্ব হস্তান্তর

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ : রবিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ মিলনায়তনে জাতীয় সাহিত্য পরিষদ জেলা শাখার দায়িত্ব হস্তান্তর অনুষ্ঠান হয়। অনুষ্ঠানে জাতীয় সাহিত্য পরিষদ চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখার সভাপতি প্রফেসর..

অশ্রুরেখা

অশ্রুরেখা

দূরে বহু দূরে কে ডাকে প্রিয়ারে পোড়া অন্তরে নিশিদিন! একাকী গোপনে মৌন বিষন্ন মনে অশ্রুরেখায় যে অন্তরীন! জানালার প্রান্ত ঘেঁষে একাকীত্ব ভালোবেসে ক্ষণে ক্ষণে ফেলে দীর্ঘশ্বাস! আলো ছায়ায় একাকার ফুল ফাগুনে নির্বকার পদ্মার..

কাল যাপন

কাল যাপন

রাত্রির বাথান জুড়ে দুঃস্বপ্নের দৌরাত্ম্য অথচ কথা ছিলো থাকবে দূর নক্ষত্রের সাথে পাল্লা দিয়ে মাথার শিথানে অগণন জোনাকি থাকবে লক্ষ্মীপেঁচা অভয়ের ডাকে -আর অচেনা ফুলের রাতচড়া সৌরভ বাতাসের মৃদু মূর্চ্ছনা জানালার..

অন্তত এবার থামো

অন্তত এবার থামো

কতদিন উষ্ণতা খুঁজি না তোমার আঁচলে, আর কতদিন থাকবে দুচোখ ডুবে আঁধারের কাজলে! এক সমুদ্র অন্ধকার, ঘুটঘুটে কালো অন্ধকার, অনন্ত অমাবস্যায় সজ্জিত অন্ধকার… কাফনের কাপড় ছুঁই ছুঁই দুরত্বে আমার ডান হাত, সংশয় আর অবিশ্বাসে..

কোন একদিন

কোন একদিন

একদিন চোখ ঠিক ভুলে যাবে অশ্রু ঢেউয়ের গর্জন, স্বপ্নে ভর করে দাঁড়িয়ে থাকা দেশটা আচমকা বাস্তবের সেতু বেয়ে সত্যিটাকে ছুঁয়ে দেবে। একদিন পাখিগুলো নীরবতা ভেঙে আকাশের দেয়ালে মনের খেয়ালে নীরবে এঁকে যাবে জীবনের গান। একদিন..

বইমেলায় কবি এ কে সরকার শাওনের তৃতীয় কাব্যগন্থ ‘আপন-ছায়া’

বইমেলায় কবি এ কে সরকার শাওনের তৃতীয় কাব্যগন্থ ‘আপন-ছায়া’

নিজস্ব প্রতিবেদক : গত রোববার বই মেলায় এসেছে কবি এ কে সরকার শাওনের তৃতীয় কাব্যগন্থ “আপন-ছায়া”। ৬৪ পৃষ্ঠার গ্রন্থটি প্রকাশ করেছে ছিন্নপত্র প্রকাশনী এবং প্রচ্ছদ একেছেন কামরুন সালেহীন তৃণা। কয়েকটি দীর্ঘ কবিটা..

কালরাত

কালরাত

মাহবুব দুলাল ৫২-তে পারেনি তারা। রাগ, ক্ষোভ আর জিঘাংসার আগুনে অহেতুক পুড়ছে-ছুতো খুঁজেছে জবাব দেবার। ৭১-এ পারবে এমন ভরসা ছিল না তাদের, ইতিহাস এখনো সাক্ষী দেয়, তারা কখনোই হয়নি জয়ী। বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ, প্রাপ্য..

উপরে