তোকে খুন করে জেল খাটবো প্যানেল মেয়রকে কাউন্সিলের হুমকি

প্রকাশিত: মে ১১, ২০২২; সময়: ৮:১৯ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া : এবার কুষ্টিয়ার পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলীর কার্যালয়ের সামনে প্যানেল মেয়র শাহিন উদ্দিনকে খুন করার হুমকি দিলো আলোচিত পৌর কাউন্সিলর রেজাউল ইসলাম ওরফে মাছ বাবু। হুমকি দেওয়ার এক পর্যায়ে শাহিন উদ্দেশ্য করে বাবু বলেন ‘ তোকে খুন করে জেল খাটবো, তুই কতবড় নেতা হয়েছিস তা আমি দেখে নেব’।

এ সময় বাবুর সাথে তার শতাধিক অনুগত পৌর মেয়র কার্যালয়ে মহড়া দেয়। এতে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। হুমকির ঘটনার পর প্যানেল মেয়র শাহিন উদ্দিন কুষ্টিয়া মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। মডেল থানায় জিডি নম্বর ৬১২। বুধবার দুপুরের দিকে এ ঘটনা ঘটে।

থানায় জিডি সুত্রে জানা গেছে, বুধবার দাপ্তরিক কাজে যান প্যানেল মেয়র শাহিন উদ্দিন। পৌর মেয়র আনোয়ার আলীর কার্যালয়ে কাজ শেষে তিনি সেখানে দাড়িয়ে ছিলেন। এ সময় ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রেজাউল ইসলাম বাবু শতাধিক ক্যাডার সাথে নিয়ে সেখানে উপস্থিত হন। শাহিনকে দেখেই বাবু তিনি মারমুখী আচরন শুরু করেন। তাকে অকথ্য ভাষায় গালাগালির এক পর্যায়ে বলেন ‘শালা তোকে দেখে নেব, তোকে খুন করে জেল খাটবো তুই কতবড় নেতা হয়েছিস তা আমি দেখে নেব’।

এ সময় সেখান থেকে চলে যান শাহিন উদ্দিন। বিষয়টি তিনি মেয়র আনোয়ার আলী ছাড়াও পুলিশ সুপার ও আওয়ামী লীগ নেতাদের অবহিত করে ফোনে।

বিকেল ৪টার দিকে কুষ্টিয়া মডেল থানায় রেজাউল ইসলাম বাবুর নামে অভিযোগ করেন শাহিন। এ ঘটনায় আইনি প্রতিকার চেয়েছেন তিনি।

কথা হলে প্যানেল মেয়র শাহিন উদ্দিন বলেন,‘ ডিস ব্যবসা নিয়ে ১৯ নম্বরের ওয়ার্ডের কাউন্সিলের সাথে স্থাণীয় এক ব্যবসায়ীর ঝামেলা হয়েছে। এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। সে শতাধিক লোকজন নিয়ে এসে আমাকে মেয়রের কার্যালয়ের সামনে এসে খুন করার হুমকি দেয়।’

জানা গেছে, কাউন্সিলর রেজাউল ইসলাম বাবুর সাথে লাইসেন্স করা দুটি অস্ত্র থাকে। এসব অস্ত্র তার ভাই ও সহযোগিরা বহন করে। এলাকায় চাঁদাবাজি, জমি ক্রয়-বিক্রয় থেকে কমিশন আদায়, সিএনজি স্ট্যান্ড থেকে মাসিক আদায়সহ নানা অভিযোগ আছে বাবুর বিরুদ্ধে। তিনি চুন থেকে পান খসলেই লোকজনকে মারধর করেন। এর আগে চাঁদা না পেয়ে দুই মটর শ্রমিককে তার অফিসে আটকে রেখে বেদম মারপিট করেন। পরে একই ঘটনায় অন্য একজনকে ছূরিকাঘাত করেন তার ভাই।

তার অত্যাচারে এলাকার মানুষ ভয়ে মুখ খুলতে পারে না। আওয়ামী লীগের শীর্ষ এক নেতার কাছের হওয়ায় লোকজন তাকে ভয় করে চলে। ওই নেতার দাপট দেখিয়ে তিনি এলাকায় নানা অপকর্ম করে আসছেন। তিনি পরপর দুইবার বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছে। তার বিপক্ষে কেউ ভোটে দাঁড়ালে হুমকি দিয়ে তাদের বসিয়ে দেওয়া হয়। সর্বশেষ নির্বাচনেও ছাত্রলীগের সাবেক এক নেতা প্রার্থী হলে জোর করে তাকে দিয়ে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করানো হয়।

এ বিষয়ে কাউন্সিলর রেজাউল ইসলাম বাবু বলেন, আমি কাউকে হুমকি দিইনি। মিথ্যা কথা এসব।

কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাব্বিরুল ইসলাম বলেন, হুমকির ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ, শাহিন উদ্দিন ১৪ নম্বর ওয়ার্ড থেকে একাধিকবার কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। এবার কাউন্সিলরদের ভোটে প্যানেল মেয়র-১ নির্বাচিত হন। তিনি বেশ কয়েকবার ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পালন করেছেন। তার ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে নিজ এলাকায়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে