সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানের ‘ইমো’ হ্যাক করে চাঁদা দাবি

প্রকাশিত: মে ১০, ২০২২; সময়: ২:৩৫ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, কচুয়া : চাঁদপুরের কচুয়ার পালাখাল মডেল ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইমাম হোসেন সোহাগের ব্যক্তিগত ইমো অ্যাকাউন্ট নাম্বার হ্যাক করে জনপ্রতিনিধি ও ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের কাছে অজ্ঞাত ব্যক্তি চাঁদা দাবি করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার বিকালে কচুয়া থানায় ডায়েরী করেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইমাম হোসেন সোহাগ। যার নং-৩৭৩,তারিখ: ০৯.০৫.২০২২ ইং।

জানা গেছে, উপজেলার ৪নং পালাখাল মডেল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মো. ইমাম হোসেন তাঁর ব্যক্তিগত ফোন নাম্বার (০১৭৪৫৫৩৮১৪৯) দিয়ে একটি ইমো অ্যাকাউন্ড খোলা হয়। সোমবার অজ্ঞাত ব্যক্তি ইমো হ্যাক করে পরিচিত জনপ্রতিনিধি ও ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে নানান অজুহাত ও বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে চাঁদা দাবি করেন। ওই দিন বিকালে এ বিষয়টি সাবেক এ ইউপি চেয়ারম্যান ইমাম হোসেনের নজরে আসে।

পরে তিনি খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন তার ব্যক্তিগত ফোন নাম্বার দিয়ে ইমো অ্যাকাউন্ট খোলা তার পরিচয়ে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের অজ্ঞাত ব্যক্তি (০১৮৩৩৯৫১৯১৯) নাম্বারে বিকাশে টাকা পাঠানোর কথা বলে ম্যাসেজ পাঠিয়ে টাকা দাবি করছে। তাৎক্ষণিক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইমাম হোসেন সোহাগ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইমো ফোন নাম্বার হ্যাক করে তার পরিচয় দিয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তি চাঁদা দাবি করছে জানিয়ে পোস্ট দেন।

সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মো. ইমাম হোসেন বলেন, অজ্ঞাত ব্যক্তি আমার ইমো ফোন নাম্বার হ্যাক করে আমার পরিচিত বিভিন্ন শ্রেনীর পেশার মানুষের কাছ থেকে বিকাশ নাম্বার দিয়ে টাকা চাওয়া হচ্ছে। ম্যাসেজে দেয়ায় বিকাশ নাম্বারে কয়েক বার ফোন দিলে রিচিভ করেননি। সোমবার বিকাল থেকে অজ্ঞাত ওই ব্যক্তি ম্যাসেজ পাঠিয়ে চাঁদা দাবি করছে। তবে বিষয়টি নিয়ে কেউ বিভ্রান্ত ও টাকা না পাঠানোর জন্য অনুরোধ করেন।

স্থানীয় কয়েকজন ব্যবসায়ী ও জনপ্রতিনিধি জানান, সোমবার বিকালে ইমোতে বিকাশ নাম্বার দিয়ে আমাদের ইমোতে ম্যাসেজ পাঠিয়ে ৫ হাজার ১শ টাকা যাওয়া হয়। হঠাৎ করে টাকা চাওয়ার বিষয়ে জানতে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইমাম হোসেনকে বিষয়টি অবগত করলে তিনি বলেন ইমো হ্যাক হয়েছে। তাই আমরা ওই ম্যাসেজে দেয়ায় বিকাশ নাম্বারে টাকা দেইনি।

কচুয়া থানার ওসি মহিউদ্দিন বলেন, বিষয়টি জেনেছি। সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইমাম হোসেন সোহাগ সাধারন ডায়েরী করেছেন। তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে