রবীন্দ্র জন্ম জয়ন্তী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী

প্রকাশিত: মে ৮, ২০২২; সময়: ৯:৩৮ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া : বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের স্মৃতিবিজড়িত কুষ্টিয়ার শিলাইদহ কুঠিবাড়িতে কবির ১৬১তম জন্ম জয়ন্তী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

রোববার বিকেল পৌনে ৪টায় তিন দিনের এই দুজনের উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপির সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী,। আরও বক্তব্য রাখেন, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো, আবুল মনসুর, স্থানীয় সাংসদ ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ। অনুষ্ঠানেস্মারক বক্তৃতা করেন প্রফেসর সনৎ কুমার সাহা। রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার নেতৃত্বে সংগীত সংগঠন সুরের ধারার শিল্পীরা জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেন।

আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে বিভিন্ন স্থান থেকে আসা শিল্পীরা রবীন্দ্র সুরের মূর্ছণায় মাতিয়ে তোলেন কুঠিবাড়ি চত্বর। ৩দিন ব্যাপী রবীন্দ্র উৎসবকে ঘিরে ভক্ত দর্শনার্থীদের ভীড়ে মুখরিত হয়ে উঠেছে কুঠিবাড়ি প্রাঙ্গণ। জেলার বাইরে থেকে, এমনকি ভারতের পশ্চিমবঙ্গ থেকেও এসেছেন অসংখ্য রবীন্দ্রপ্রেমী মানুষ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিশ্রুতি দিলেও রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় শিলাইদহে স্থাপন হয়নি।

এতে কুষ্টিয়া তথা খুলনা বিভাগের মানুষ আশাহত। তারা বলেন, জমিদার রবীন্দ্রনাথের বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ হয়ে উঠার পিছনে শিলাইদহের ভুমিকা অপরিসীম। বাংলাদেশের আরও কয়েকটি জায়গায় কবির পদচারণা হলেও পদ্মা চুম্বিত শিলাইদহ ছিল সব কিছুর কেন্দ্র বিন্দু। বক্তারা বলেন, রবীন্দ্রনাথ শিলাইদহে সপরিবারের এক নাগাড়ে ২ বছর বসবাস করেছিলেন, যা আর কোথাও করেননি। তাই শিলাইদহে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন সময়ের দাবি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে