সিংড়ায় বৈশাখী মেলার নামে জুয়ার আসর

প্রকাশিত: মে ৬, ২০২২; সময়: ৩:১৯ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোর : নাটোরের সিংড়ায় বৈশাখী মেলার নামে চলছে জমজমাট জুয়ার আসর। এছাড়া বৈশাখি অনুষ্ঠানের নামে পরিবেশন করা হচ্ছে অশ্লীল নৃত্য। এতে নিঃস্ব হচ্ছে কৃষক এবং বিপদগামী হচ্ছে যুব সমাজ। এসব অসামাজিক কর্মকান্ড বন্ধে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

এলাকাবাসী সুত্রে জানাযায়, বুধবার সন্ধ্যা থেকে উপজেলার বড়বড়িয়ায় আয়োজন করা হয় বৈশাখী মেলার। মেলার পাশের একটি পুকুর পাড়ে বসারো হয় ফর-গুটির জুয়ার আসর। সেখানে প্রকাশ্যে ডাবু খেলার আয়োজন করা হয় । ছোট-বড় মিলে মোট ৫টি জুয়ার বোর্ডে লাখ লাখ টাকার খেলা হয়।

লোভের ফাঁদে পড়ে এক রাতেই অনেকে সর্বশান্ত হয়েছে। স্থানীয় কৃষক ও যুব সমাজ হুমরি পড়ে ওই খেলার আসরে। অনেকেই লাভের আশায় বোর্ডে টাকা ফেলে নিঃস্ব হন। এসব মেলার কারণে চলনবিলের হাজার হাজার নিরীহ কৃষক এবং যুবসমাজ নিঃস্ব ও বিপদগামী হচ্ছেন।

জানা যায়, ঈদের পরের দিন মাইকিং করে এই মেলার আয়োজন করেছে বালুয়া বাসুয়া তরুন সংঘের নামে যুবলীগ নেতা ফারুক হোসেন মোল্লা। সে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কার্যালয় থেকে ২৬ হাজার ২৫০ টাকা দিয়ে ইজারা নিয়ে এই মেলার আয়োজন করেছেন। যদিও মেলা আয়োজনের শর্তে জুয়া-নৃত্য পরিবেশন সহ অবৈধ খেলাধূলার আয়োজন নিষিদ্ধ থাকলেও তা মানা হচ্ছে না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয়রা জানান, প্রতি বছরের ন্যায় ২১ শে বৈশাখ ইটালীর ইউনিয়নের বড়বড়িয়া মেলার আয়োজন করা হয়েছে। এই মেলাকে ঘিরে এলাকায় জামাই ও বউ-ঝি এর আগমন ঘটে। ঘরে ঘরে চলে আনন্দ ও উল্লাস। কিন্তু এবার মেলায় জুয়ার আয়োজন করায় এলাকাবাসীর আনন্দ মাটিতে মিশে গেছে।

এর আগে ২৮ মার্চ রাতে উপজেলার বিনগ্রাম স্কুল মাঠে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানে প্রকাশ্যে আপত্তিকর ও অশ্লীল নৃত্য পরিবেশন এর ব্যবস্থা করেন আওয়ামীলীগের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিডিও টি ভাইরাল হলে ব্যাপক সমালোচনা ও প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। পরে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে তা বন্ধ হয়ে যায়। স্কুল মাঠে ওই অশীøল নৃত্যের আয়োজন করায় স্কুলের প্রধান শিক্ষককে শোকজ করা হয় উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে।

বৈশাখি মেলার ইজারাদার ফারুক হোসেন মোল্লার সাথে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি এমন অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, কয়েক যুগ ধরে বড়বাড়িয়ায় বৈশাখী মেলার আয়োজন করা হয়। এবারও করা হয়। একদিনের এই মেলায় কোন ধরনের জুয়ার আসর বসানোর অভিযোগ সত্য নয়। এধরনের মিথ্যা অভিযোগের কারনে প্রশাসন থেকে একদিনের বেশী মেলা চলতে দেওয়া হয়নি। পুলিশ মেলা বন্ধ করে দিয়েছে।

সিংড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নুর-এ-আলম সিদ্দিকী বলেন, জুয়া খেলার খবর পেয়ে মেলা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে