ধামইরহাটে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আদিবাসী উপর হামলা, ফসল তছনছ

প্রকাশিত: এপ্রিল ২৬, ২০২২; সময়: ২:২৮ am |

নিজস্ব প্রতিবেদক, ধামইরহাট : নওগাঁর ধামইরহাটে ফসলে ছাগল প্রবেশ করে ফসল নস্টের প্রতিবাদ করায় আদিবাসী পরিবারের উপর হামলা ও ফসল তছনছ করা হয়েছে। প্রতিপক্ষের এই হামলায় গৃহবধুকে বেধড়ক মারপিটে গুরুত্বর জখম ও আহত করেছে প্রতিপক্ষরা। এ বিষয়ে ধামইরহাট থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

থানার অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নানাইচ (বেগুনবাড়ি) এলাকার মৃত পাংকারিউস তপ্নের ছেলে সঞ্জিব তপ্ন তার নিজস্ব জমিতে ধান, পটল, তরই-ঝিংগেসহ রবিশষ্য চাষাবাদ করে আসছেন। উক্ত জমিতে প্রতিপক্ষ মৃত তছির উদ্দিনের ছেলে তারাজুল ইসলাম গং এর পরিবারের লোকজন ও ছাগল প্রায়শ জমিতে ক্ষেত উপড়াইয়া ও ছাগল দিয়ে খাওয়ায়ে পটল ও তরই ক্ষেতের ক্ষতি করে।

এ বিষয়ে প্রতিপক্ষ তারাজুলকে আদিবাসী কৃষক সঞ্জিব তপ্ন বাধা নিষেধ করলে তারাজুল গং ক্ষিপ্ত হয়ে ২৩ এপ্রিল বিকেলে হাসুয়া দ্বারা ফলবান পটল ও রবিশষ্যের ঝাংলি তছনত করে। এ সময় বাধা দিতে গেলে তারাজুল ইসলাম, তারাজুলের স্ত্রী সুম্মা বেগম ও ছেলে সিয়াম কৃষক সঞ্জিব তপ্নকে ধারালো হাসুয়া নিয়ে ধাওয়া করে।

এ সময় সঞ্জিবের স্ত্রী মালতী ভেংরাকে লোহার রড় দিয়ে বেধড়ক মারপিটে গুরুত্বর আহত করে। স্থানীয়রা আহত অবস্থায় ভুক্ষভোগী কৃষক ও তার স্ত্রীকে ধামইরহাট হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ধামইরহাট হাসাপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. জহুরুল ইসলাম বলেন, আদিবাসী নারীর শরীরে প্রচন্ড আঘাতের ফলে শরীরে রক্ত জমে কালচে হয়ে গেছে, আমি তার সর্বোচ্চ চিকিৎসা ও সেবা নিশ্চিত করছি এবং সকল ঔষুধপত্র প্রদান করছি।

ধামইরহাট থানার ওসি মোজাম্মেল হক কাজী জানান, ঘটনার বিষয়ে থানা পুলিশ পাঠিয়েছি, তদন্ত শেষে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপে