নাটোরে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থীর বিরুদ্ধে বসত বাড়ি দখলের অভিযোগ

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৪, ২০২২; সময়: ৭:০৩ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোর : নাটোরে স্বতন্ত্র (বিএনপি থেকে সদ্য বহিস্কৃত ) মেয়র প্রার্থী শেখ এমদাদুল হক মামুনের বিরুদ্ধে বসতবাড়ি জবল দখলের অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার। ওই জবর দখলকৃত বাড়ি উদ্ধারের দাবী জানিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা।

এদিকে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে বসত বাড়ি জবর দখলের অভিযোগকে ভিত্তিহীন এবং জমিটি ক্রয়কৃত সম্পত্তি বলে দাবী করেছেন শেখ এমদাদুল হক মামুন। নির্বাচনের একদিন আগে এধরনের অভিযোগকে মনগড়া এবং ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে দাবী করেন।

শুক্রবার দুপুরে স্থানীয় একটি রেস্তোরায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বয়সের ভারে ন্যুয়ে পড়া শতবর্ষি নুর মোহম্মদ আলু মিয়া বলেন, নাটোর শহরের দক্ষিন বড়গাছা এলাকায় হাউজ বিল্ডিং থেকে ঋন নিয়ে তিনি বাড়ি নির্মান করেন। বাড়িটি ১৯৮৯ সালে তার প্রতিবেশী সাবেক মেয়র (বিএনপি থেকে সদ্য বহিস্কৃত) শেখ এমদাদুল হক মামুন তার কাছে থেকে এককালীন ১৩ হাজার টাকা ও মাসিক ৫০শ টাকায় বাড়িটি ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত পাঁচ বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ হন।

তিনি বাড়িটি ভাড়া নেওয়ার পর নীলা ভিডিও নামে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও পরিচালনা করতে থাকেন। চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তিনি চুক্তির শর্ত ভঙ্গ করে বাড়িটি তৃতীয় পক্ষকে ভাড়া দেন। বাড়িটি ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য বহুবার তার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি কর্ণপাত করেনা এক পর্যায়ে ২০১১ সালে পৌর সভার মেয়র নির্বাচিত হন এবং তিনি ক্ষমতার দাপট দেখাতে থাকেন। তিনি গত ৩২ বছর ধরে বাড়িটি জবর দখল করে আছেন। শতবর্ষি নুর মোহম্ম আলু মিয়া বাড়িটি দখলমুক্ত করে তা উদ্ধারের জন্য আবেদন জানিয়েছেন।

এদিকে শুক্রবার বিকেলে আয়োজিত পাল্টাসংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আসন্ন পৌর নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ এমদাদুল হক মামুন বাড়িটি তার কেনা সম্পত্তি বলে দাবী করেন। শেখ এমদাদ তার বাসভবনে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। শেখ এমদাদ লিখিত বক্তব্যে বলেন, ১৯৮৯ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর ১০১২৭ নং দলিলমুলে ৪শতক ৪৬ লিংক জমি তিনি তার ফুফু সুজিমন বিরি কাছে থেকে ক্রয় করেন।

এছাড়া একই বছরের ২৭ অক্টোবর ১১১০১ নং দলিল মুলে তার অপর ফুফু নেকিমন বিরি কাছে থেকে আরো ৪শতক ৪৬ লিংক জমি ক্রয় করে ভোগ দখল করে আসছেন। তিনি দাবী করেন, প্রায় ১৪ কোটি টাকা মুল্যের জমি দান করে একটি মাদ্রাসা ও মসজিদ করেছেন। কারো জমি জবর দখলের অভিযোগ উদ্দেশ্য প্রণোদিত। কেননা নির্বাচনের একদিন আগে কার ইংগিত ও প্ররোচনায় করা হয়েছে তা আপনাদের সকলেই উপলদ্ধি করছেন বলে গণমাধ্যম কর্মীদের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন রাখেন। তিনি নৌকা প্রতীকের প্রাথীর্কে উদ্ধেশ্য করে বলেন,তার নারিকেল গাছ প্রতীকের প্রতি মানুষের গণজোয়ার দেখে নৌকা প্রার্থী দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। কোন মিথ্যাচার বা মনগড়া কাহিনী নারিকেল গাছ প্রতীকের বিজয় ঠেকাতে পারবেননা কেউ।

নাটোর পৌরসভায় আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র উমা চৌধুরী জলি বলেন, জনাব শেখ এমদাদ মেয়র থাকাকালীন অনিয়ম ও দুর্নীতির কারনে মানুষ তার দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। উপরুন্তু পৌর বিএনপির আহ্বায়ক সহ দলীয় সদস্য পদ থেকে তাকে অব্যাহতি দিয়েছে দলটি। এতে সে পাগল হয়ে পাগলামি শুরু করেছে। কি বিষয়ে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে সে বিষয়ে তিনি অবগত নন।

তবে যতটুকু জেনেছেন যারা শেখ এমদােেদর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তারা একই পরিবারের। নিজের পরিবারের বিরোধসহ অপকর্ম ঢাকতে শেখ এমদাদ সাহেব নৌকাকে ঢাল বা হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহারের চেষ্টায় অপপ্রচার করছেন। এসব মিথ্যাচার করে নৌকার বিজয় ঠেকানো যাবেনা। জনগন উন্নয়নের পক্ষে। তাই সবাই এখন নৌকার পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে