নাকফুল দিয়ে নারীদের কাছে ভোট চাইলেন প্রার্থী

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৭, ২০২১; সময়: ৩:৪৭ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে সমর্থকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাইলেন প্রার্থী। একইসঙ্গে নারীদের হাতে নাকফুল ও টাকা দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমনই ঘটনা ঘটেছে উপজেলার ১নং সুন্দরপুর-দুর্গাপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডে।

জানা গেছে, সুন্দরপুর-দুর্গাপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের মহাদেবপুর এলাকার বিউটি খাতুনের বাড়িতে গিয়ে ভোট চাইলেন ফুটবল প্রতীকের প্রার্থী আমির হোসেনের ভাই সাইফুল হোসেন।

এ সময় তিনি হাতের মধ্যে একটি নাকফুল ও ১০০ টাকা দেন। এ ছাড়াও দুর্গাপুর গ্রামে প্রমীলা রানীর বাড়িতে গিয়ে নাকফুল দেন প্রার্থী আমির হোসেন নিজেই।

মহাদেবপুর গ্রামের বিউটি খাতুন বলেন, গতকাল শুক্রবার ( ২৬ নভেম্বর) সকালে ফুটবল প্রতীকের প্রার্থী আমির হোসেনের ভাই সাইফুল এসে তার হাতে একটি সোনালি রঙের নাকফুল ও ১০০ টাকা দেন।

এরপর ফুটবল মার্কায় ভোট দিতে বলা হয়। বিষয়টি বুঝতে পেরে তিনি সঙ্গে সঙ্গেই তাদের কাছে নাকফুল ও ১০০ টাকা ফেরত দেন।

দুর্গাপুর গ্রামের প্রমীলা রানী বলেন, আমির হোসেন বাড়িতে এসে ‘বল’ মার্কায় ভোট দেওয়ার জন্য বলেন। এরপর সে নিজ হাতে দুইটি নাকফুল দেন।

তিনি আরও বলেন, নাকফুল আমার লাগবে না। তখন আমির হোসেন মেয়েকে দিতে বলেন। গ্রামের বিভিন্ন নারীদের এ নাকফুল দেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন ওই নারী।

এ ব্যাপারে ফুটবল প্রতীকের প্রার্থী আমির হোসেন বলেন, প্রতিপক্ষরা এর আগেও ষড়যন্ত্র করেছে। এবারও তার প্রতিপক্ষরা ষড়যন্ত্র করে এগুলো করেছে। কাউকে টাকা দিয়ে ভোট করব না।

১নং সুন্দরপুর-দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক অফিসার মধুসূদন সাহা জানিয়েছেন, নাকফুল দেওয়ার ঘটনায় কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেব।

উল্লেখ্য, আগামী ২৮ নভেম্বর ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে