সুজানগরে স্বল্প মূল্যের চাল-আটা কিনতে ক্রেতাদের দীর্ঘ লাইন

প্রকাশিত: আগস্ট ৫, ২০২১; সময়: ৭:০৭ pm |

এম এ আলিম রিপন, সুজানগর : বাজারে চাল ও আটার দামে হিমশিম খাচ্ছে নিম্ন আয়ের মানুষ। এ কারণে করোনা সংক্রমণে খাদ্যসংকটে পড়া মানুষকে স্বল্প মূল্যে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গত ২৫ জুলাই রবিবার থেকে সুজানগরে খোলা বাজারে শুরু হয়েছে ওএমএসের চাল ও আটা বিক্রি।

সাশ্রয়ী দামে এ পণ্য দুটি কিনতে প্রতিদিন নিম্ন আয়ের মানুষেরা ছুটছেন খাদ্য অধিদপ্তর পরিচালিত নির্ধারিত ডিলারদের দোকানে। অনেক ক্রেতাই ওএমএসের চাল ও আটা বিক্রি শুরু হওয়ার কয়েক ঘন্টা আগেই ডিলারের দোকানের সামনে লাইনে দাঁড়াচ্ছেন। বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় বিভিন্ন ডিলারের দোকান ঘুরে এমন দৃশ্য চোখে পড়ে। উপজেলা মোড় এলাকায় অবস্থিত ওএমএসের ডিলার আব্দুস সালামের দোকানে ওএমএসের চালের জন্য লাইনে দাঁড়ানো শরিফ উদ্দিন বলেন,দীর্ঘ সময় লাইনে দাাঁড়িয়ে থাকলেও এখান থেকে আমাদের মত নিম্ন আয়ের মানুষেরা স্বল্প মূল্যে ভাল মানের চাল কিনতে পারছি।

এদিকে ক্রেতাদের চাপ বেশি থাকায় কম দামে জীবন ধারণের অপরিহার্য এ দুটি পণ্যের চাহিদা মেটাতে হিমশিম খাচ্ছেন ডিলাররা। ডিলারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, লকডাউনে ক্রেতাদের চাপ অনেক বেশি। তারা যে চাল ও আটা বরাদ্দ পাচ্ছেন ,তা অল্প সময়ের মধ্যেই বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। তাদের দাবি,ক্রেতাদের চাহিদার তুলনায় বরাদ্দের পরিমাণ কম।

বর্তমানে একজন ডিলার প্রতিদিন সর্বোচ্চ দেড় মেট্রিকটন চাল ও এক মেট্রিকটন আটা বরাদ্দ পান। এ চাহিদার পরিমাণ বাড়িয়ে দিলে ক্রেতাদের চাহিদা মেটানো যাবে। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আনোয়ার পাভেজ জানান, সুজানগরের মোট ৪ জন ডিলার ৩০ টাকা দরে জনপ্রতি ৫ কেজি করে চাল ও ১৮ টাকা কেজি দরে ৫ কেজি হারে আটা বিক্রি করছেন।

সরকারি বিধি অনুযায়ী সুষ্ঠভাবে ওএমএস কার্যক্রম পরিচালনার কঠোর নির্দেশনা আছে। উল্লেখ্য খাদ্য অধিদপ্তর পরিচালিত সুজানগর পৌরসভার উপজেলা মোড় সংলগ্ন আদর্শ ক্লাবে ওএমএসের ডিলার আব্দুস সালাম (ডাব), উপজেলা হাসপাতাল গেটের সামনে ডিলার বাবলু কুমার সাহা, উপজেলা অডিটরিয়ামে ডিলার আব্দুস সালাম ও স্থানীয় মোহাম্মাদিয়া দাখিল মাদরাসায় ডিলার রুহুল আমিন এর দোকানের মাধ্যমে করোনা ভাইরাসের চলমান সংক্রমণের কারণে আরোপিত বিধিনিষেধের ফলে ক্ষতিগ্রস্থ নিম্ন আয়ের মানুষদের মাঝে শুক্রবার ছাড়া সপ্তাহের প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত এ চাল ও আটা বিক্রি করা হচ্ছে।

  • 164
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে