স্যাম্পল দিতে এসে কেউ যেন হয়রানির শিকার না হয় : খাদ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত: আগস্ট ৪, ২০২১; সময়: ১২:০৬ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, নওগাঁ : করোনা স্যাম্পল দিতে এসে কেউ যেন অবহেলা বা হয়রানির শিকার না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে ল্যাব স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।

মঙ্গলবার বিকেলে নওগাঁয় ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নওগাঁ জেনারেল হাসপাতালে আরটি-পিসিআর ল্যাব উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, নওগাঁবাসির প্রাণের দাবি ছিল একটি আরটি-পিসিআর ল্যাবের। প্রধানমন্ত্রী সেই ল্যাবের অনুমোদন দিয়েছিলেন সেটা আজকে আমারা ভালভাবে সম্পন্ন করতে পেরেছি। ফলে স্বল্পসময়ে করোনা রোগী সনাক্তকরণ এবং করোনা আক্রান্ত রোগীদের ব্যবস্থাপনা সহজ হবে।

তিনি বলেন, করোনা নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য আগে নওগাঁ থেকে রাজশাহী, বগুড়া এমনকি ঢাকার বিভিন্ন ল্যাবে পাঠানো হতো। ফলে ফলাফল পেতে বিলম্ব হতো। অনেক ক্ষেত্রে সংগ্রহকৃত নমুনা নষ্ট হয়ে যাওয়ায় সঠিক ফল পেতেও অসুবিধায় পড়তেন রোগীরা। এই ল্যাব চালু হওযায় এখন আর এই সমস্যা হবে না।

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন-দেশে যে পরিমান প্রতিদিন টিকা আসছে তাতে আগামী ডিসেম্বর মাসের ৮০ ভাগ মানুষকে টিকা সম্পন্ন হবে। এছাড়াও আগামী ৭ আগষ্ট থেকে প্রতিটি ইউনিয়নের করোনা টিকা দেওয়া হবে।

এছাড়াও ডিজিটাল সেন্টারগুলোতে বিনা মূল্যে টিকা রেজিষ্ট্রেশন করে দেওয়া হচ্ছে। কেউ যদি টিকা দেওয়ার নাম করে টাকা নেয় তার বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেন মন্ত্রী।

উল্লখ্য,স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে গত বছর ল্যাব স্থাপনের অনুমোদন পাওয়া গেলেও বিভিন্ন কারণে সেটি স্থাপনের কাজ ঝুলে ছিলো। আরটি-পিসিআর ল্যাবের গুরুত্বপূর্ণ অংশ বায়োসেপটিক ক্যাবিনেট স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে সরবরাহ না করায় ল্যাবটি চালু করা যাচ্ছিলো না।

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার নিজস্ব অর্থায়নে বায়োসেপটিক ক্যাবিনেট কিনে দিয়েছেন। সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সুবিধার এ ল্যাবে আজ থেকেই নমুনা পরীক্ষা শুরু হবে। প্রতিদিন এখানে ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে রিপোর্ট দেওয়া সম্ভব হবে।

এসময় নওগাঁ মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ডাঃ আব্দুল বারীর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য ব্যারিষ্টার নিজাম উদ্দিন জলিল জন ও আনোয়ার হোসেন হেলাল,জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ আব্দুল মালেক, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাড. এ কে এম ফজলে রাব্বী, জেলা প্রশাসক মো: হারুন অর রশীদ, পুলিশ সুপার আবদুল মান্নান মিয়া, সিভিল সার্জন ডা. এবিএম আবু হানিফসহ স্বাস্থ্য বিখাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে খাদ্যমন্ত্রী সদর উপজলো পরিষদ মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে করোনাকালে নিম্ন আয়ের অসহায় ২৫০ জন মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তা বিতরন করেন।

  • 210
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে