স্ত্রীর অধিকার আদায়ে বিষের বোতল ও কাবিন নামা নিয়ে স্বামীর বাড়ি অবস্থান

প্রকাশিত: আগস্ট ৩, ২০২১; সময়: ৭:৩২ pm |

নিজস্ব প্রতিবেদক, টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলের সখীপুরে সুলতানা খাতুন (২৪) নামের এক নারী স্ত্রীর অধিকার আদায়ে বিষের বোতল আর কাবিন নামা হাতে নিয়ে গত তিন দিন ধরে স্বামীর বাড়ির বারান্দায় বসে আছেন। শনিবার (৩১ জুলাই) থেকে উপজেলার দাড়িয়াপুর দক্ষিণপাড়া ফাইলা পাগলার মাজার এলাকায় স্ত্রীর অধিকার আদায়ে এ অনশন চলছে। স্ত্রীর অধিকার না পেলে তিনি এখানেই আত্মহত্যা করবেন বলে জানিয়েছেন। সে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলা সদরের আজগর আলীর মেয়ে।

জানা যায়, উপজেলার দাড়িয়াপুর ইউনিয়নের দাড়িয়াপুর ফাইলা পাগলার মাজার এলাকার মৃত মোজাফফর মিয়ার ছেলে আবদুর রহিম মিয়ার সঙ্গে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলা সদরের আজগর আলীর মেয়ে সুলতানা খাতুনের (২৪) গাজীপুর চৌরাস্তায় সেবা এনজিও নামে একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরির সুবাদে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তারা ২০১৭ সালের ৩ আগস্ট ৭ লাখ টাকা দেনমোহরে বিয়ে করেন।

সেই থেকে তারা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে গাজীপুর চৌরাস্তার ভাওয়াল কলেজ সংলগ্ন আক্কাছ আলীর বাসায় ভাড়া থাকতেন। কিছুদিন আগে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে রহিম বাসা থেকে চলে আসেন এবং তার ব্যবহৃত মুঠোফোনের নাম্বার পাল্টিয়ে গ্রামের বাড়ি দাড়িয়াপুরে চলে আসেন। পরবর্তীতে ওই নারী রহিমের সঙ্গে নানাভাবে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তিনি তাকে স্ত্রী হিসেবে অস্বীকার করেন। এরপর ঠিকানা অনুযায়ী শনিবার (৩১ জুলাই) আবদুর রহিমের বাড়ি স্ত্রীর অধিকার আদায়ে কাবিননামা এবং বিষের বোতল নিয়ে চলে আসেন। স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহিন আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আবদুর রহিমের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে জানান, ওই নারীকে জোরপূর্বক বিয়ে করতে বাধ্য করা হয়েছে তাকে।

৭নং দাড়িয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনসার আলী আসিফ বলেন, বিষয়টি মীমাংসার লক্ষ্যে বুধবার (৪ আগস্ট) রহিমসহ উভয়পক্ষের লোকজনকে ডাকা হয়েছে।

  • 68
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে