চেয়ারম্যানের কাছে বিচার চাইতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ

প্রকাশিত: জুলাই ৩১, ২০২১; সময়: ৯:৪৫ pm |

পদ্মাটাইমস ডেস্ক : বগুড়ার শেরপুরে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের কাছে বিচার চাইতে গিয়ে এক গৃহবধূ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। এ ঘটনায় গতকাল শনিবার ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে খামারকান্দি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল ওহাবের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, দুই সন্তানের জননী ওই গৃহবধূ এক বছর আগে অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যানের চাচাতো ভাই আব্দুস সালামকে সাড়ে তিন লাখ টাকা ধার দেন। টাকা নেওয়ার পর থেকেই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন সালাম। টাকা পরিশোধে নানারকম টালবাহানা করতে থাকেন। এমনকি পাওনা টাকা দিতে অস্বীকার করেন। টাকা চাইতে গেলে হুমকি-ধমকি দেওয়া হয়। এক পর্যায়ে টাকা আদায় এবং ওই প্রতারকের বিচার চাইতে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল ওহাবের শরণাপন্ন হন ওই নারী। শুক্রবার সকালে বিচারের কথা বলে তাকে পৌর শহরের জগন্নাথপাড়ার বাসায় ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন ইউপি চেয়ারম্যান।

ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ বলেন, বিচারের আশ্বাস পেয়ে বাসায় গিয়ে দেখি, চেয়ারম্যান ছাড়া বাড়িতে আর কেউ নেই। দু’দিন আগে সন্তানদের নিয়ে তার স্ত্রী বাবার বাড়ি বেড়াতে গেছেন। এ সময় খালি বাসায় কিছু বুঝে ওঠার আগেই আমাকে আটকে রেখে ধর্ষণ করেন চেয়ারম্যান।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে আব্দুল ওহাব বলেন, আমি ষড়যন্ত্রের শিকার। সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করা এবং আসন্ন ইউপি নির্বাচন থেকে দূরে রাখতেই পরিকল্পিতভাবে ধর্ষণের এ অভিযোগ আনা হয়েছে।

শেরপুর থানার ওসি শহিদুল ইসলাম বলেন, ভুক্তভোগী নারীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সেই সঙ্গে আসামিকে গ্রেপ্তারে মাঠে নেমেছে পুলিশ।

  • 22
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে